• মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কুলিয়ারচরে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপন কুলিয়ারচরে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্যদের সাথে নবাগত ইউএনও ও সংস্থার সভাপতি’র মতবিনিময় কিশোরগঞ্জে ব্যাবের হাতে প্রায় ৪ হাজার পিস ইয়াবা নিয়ে তিনজন গ্রেফতার মিঠামইনে দুই ইউনিয়নে ফ্রি চিকিৎসা সেবা ও ত্রাণ বিতরণ করলেন ডা. বুলবুল আহম্মদ পাকুন্দিয়ায় মাদক, কিশোর গ্যাং ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সভা ইটনায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্যোগে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ভৈরব র‌্যাবের হাতে নারায়ণগঞ্জের মদনপুর থেকে ২০ কেজি গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক কিশোরগঞ্জে জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সভা ও কমিটি গঠন কিশোরগঞ্জে মাদকবিরোধী দিবসে র‌্যালি আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ কিশোরগঞ্জে মিঠামইনে এমপি তৌফিকের ত্রাণ

অষ্টগ্রামে রিপন হত্যার প্রতিবাদে মানবন্ধনে পুলিশের বাধা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

অষ্টগ্রামে রিপন হত্যার
প্রতিবাদে মানবন্ধনে পুলিশের বাধা
ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

# মো. আল আমিন টিটু :-

কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রামে রিপন হত্যার প্রতিবাদের মানববন্ধন করেছে নিহতের স্বজনরা ও এলাকাবাসী। উপজেলা পরিষদের সামনে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে তারা। শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে পুলিশ বাধা দিলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ সাব্বির হোসেন নামে একজনকে আটক করে। পরে নিহতের স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে ওঠে এবং উপজেলা পরিষদের সামনে বিক্ষোভ করতে থাকে। পরে অষ্টগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রফিকুল আলমের আশ্বাসে পরিস্থিতি শান্ত হয়। একই সঙ্গে আধ ঘন্টা পর সাব্বিরকেও ছেড়ে দেয় পুলিশ। ফলে এলাকার পরিবেশ শান্ত হয়।
জানাযায়, হাওর উপজেলা অষ্টগ্রাম সদরের নাথপাড়ায় গেল ২৪ মার্চ রাত ৯টার দিকে রাধা মাদব আখড়ায় রিপন নামে এক যুবক ছুরিকাঘাতে খুন হয়। নিহত রিপন আলমা দিঘি গ্রামের শিশু মিয়ার ছেলে। নিহত রিপন পেশায় একজন নিমার্ণ শ্রমিক ছিলেন। ছেলের এমন মৃত্যূতে পাগল প্রায় মা আবেদা বেগম।
নিহতের স্বজনরা জানায়, ২৪ মার্চ বুধবার রাত ৯টার দিকে নাথপাড়ার রাধা মাদব আখড়ায় একটি পূজা চলছিল। নিহত রিপন পূজায় গেলে একই মহল্লার বশুরাম সরকার এবং মায়ারাম সরকারের সঙ্গে তুচ্চ বিষয়কে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তারা রিপনকে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই রিপন প্রাণ হারায়। পরে ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে। একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িত রশুরাম সরকার ওরফে বশুকে আটক করে পুলিশ। পরের দিন নিহতের মা আবেদা বেগম বাদী হয়ে অষ্টগ্রাম থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় বশুরাম সরকার এবং মায়ারাম সরকারের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়।
এ প্রসঙ্গে অষ্টগ্রাম থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ আলী রাশেদ জানান, ভুল বুঝাবুঝির কারণে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে অবসান হয়। তিনি আরও জানান, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ওইদিনই বশুরামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এছাড়াও মামলার অন্য আসামিদেরকেও গ্রেফতার করতে পুলিশ কাজ করছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!