• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কটিয়াদীতে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক, পুলিশের গুলি, গ্রেপ্তার ২৩ জমি অধিগ্রহণের দুই কোটি টাকা ফেরত না দিতে নানা ষড়যন্ত্র দাতার বিরুদ্ধে লাল বাহাদুরের রং পাল্টে হয়ে গেল কুচকুচে কালো নানা অঙ্গসজ্জায় সাজানো হয় কোরবানির পশু পাচারকালে ৬০ বস্তা সার জব্দ করে মামলা পৌনে তিনশ বছরের প্রাচীন শোলাকিয়া ঈদগার প্রস্তুতি ভৈরবে এমবিশন পাবলিক স্কুলের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কুরবানী সম্পর্কীত কিছু মাসায়েল ; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক ছিনতাইকৃত টাকা ও মাদক উদ্ধারে অবদান রাখায় আইজিপি পুরস্কারে ভূষিত ভৈরবের ওসি সফিকুল ইসলাম ইসরায়েলি গণহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মাছের মেলা কুড়িখাই শুক্রবার হবে বউমেলা

মাছের মেলা কুড়িখাই
শুক্রবার হবে বউমেলা

# মোস্তফা কামাল  :-
দেশের অন্যতম দীর্ঘস্থায়ী কিশোরগঞ্জের ৫০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী কুড়িখাই মেলা জমে উঠেছে। ৫ দিন স্থায়ী এ মেলায় শুক্রবার আয়োজন করা হবে ‘বৌ-মেলা’। এটিকে মাছের মেলা বলেও অনেকে অভিহিত করে থাকেন। কারণ, সিলেট অঞ্চলসহ বিভিন্ন এলাকার হাওর আর নদীসহ প্রাকৃতিক জলাশয়ের বড় বড় মাছ এই মেলার প্রধান আকর্ষণ। ২ কেজি থেকে ২৫ কেজি ওজনের মাছ মানুষকে বিশেষভাবে আকর্ষণ করে। কুড়িখাই মেলা চলে ৫দিন ব্যাপী। হযরত শাহ জালালের (রহ.) বংশধর বার আউলিয়ার অন্যতম হযতর শাহ সামছুদ্দীনের (রহ.) মাজারকে কেন্দ্র করে প্রতি বছর মাঘ মাসের শেষ সোমবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত স্থায়ী হয় এই মেলা। শুক্রবার হবে বৌ-মেলা। এদিন পুরুষদের কোন ঠেলাঠেলি থাকবে না। কেবল নারীরা মেলায় আসবেন। জানিয়েছেন মেলা পরিচালনা কমিটির সম্পাদক মঈনুজ্জামান অপু। তিনি জানিয়েছেন, এবছর মেলার ইজারা হয়েছে ১৭ লাখ টাকায়। গতবছর হয়েছিল ১৩ লাখ টাকায়। এসব টাকা মেলা কমিটির ব্যাংক হিসাবে জমা হয়। নানা উন্নয়নমূলক কাজসহ বিভিন্ন আনুষঙ্গিক প্রয়োজনে এসব টাকা ব্যয় করা হয়।
মেলাটি শুরু হয় সোমবারের ফকিরি মেলা দিয়ে। এটাই এই মেলার শত শত বছরের ঐতিহ্য। এদিন দেশের নানা প্রান্ত থেকে বাউল ফরিকরা এসে অবস্থান নেন। সোমবার বড় বড় তামার পাতিলে খিচুরি রান্না হয়। সেগুলি বাউল ফকিরসহ আগত মানুষদের মধ্যে বিতরণ করা হয়ে। সারারাত চলে বাউল ফকিরদের নাচ-গান। আবার শাহ সামছুদ্দীন আউলিয়ার মাজারে অনেককে মোমবাতি, আগর বাতি, গোলাপ জলসহ বিভিন্ন মানত পৌঁছে দিতেও দেখা যায়।
মঙ্গলবার থেকে শুরু হয় মূল মেলা। এদিন থেকেই স্থানীয়সহ বিভিন্ন এলাকার ধর্ম নির্বিশেষে বিভিন্ন বয়সের লোকজন তাদের সন্তানদের নিয়ে মেলায় যেতে শুরু করেন। সকাল থেকেই মেলা জমজমাট হতে শুরু করে। তবে দুপুরের পর ভিড় বাড়তে থাকে। তখন বিদ্যালয়ের পাঠগ্রহণ শেষে শত শত শিক্ষার্থীও মেলায় যায়। রাত ৯টা পর্যন্ত সকলের কোলাহলে মুখরিত থাকে পুরো মেলা। এই মেলায় মাছ, বিন্নি, জিলাপি, খেলনা, কাঠের পণ্যসহ অন্তত চার শতাধিক বিভিন্ন পণ্যের দোকান বসে। বসে হোটেলও। বসানো হয় নাগরদোলাসহ শিশুদের জন্য আকর্ষণীয় বিভিন্ন রাইড। থাকে সার্কাস পার্টিও।
মেলার আগে এলাকার যারা জামাই, তারা শ্বশুর বাড়ির দাওয়াতে চলে আসেন। কারণ, এই মেলায় ওঠে বিভিন্ন জেলা থেকে আসা বড় বড় মাছ। পাওয়া যায় বিন্নি, গুরের তৈরি চিনির তৈরি খেলনা, কদমা আর গুরের জিলাপি। এতদঅঞ্চলের এটি সবচেয়ে বড় বার্ষিক উৎসব। আজ মেলায় গিয়ে দেখা গেছে, গচিহাটা এলাকার বাবুল মিয়া, আলাল মিয়া, জাকির হোসেন, ধুলদিয়া এলাকার দিলু মিয়াসহ শতাধিক মাছ ব্যবসায়ী বড় বড় মাছের সারি সাজিয়ে বসে আছেন। বাবুল মিয়ার দোকানে দেখা গেছে ২০ কেজি ওজনের বড় একটি কাতলা। দাম চাচ্ছেন ১২শ’ টাকা কেজি। রয়েছে ১০ কেজি ওজনের আইর। দাম চাচ্ছেন ১৮শ’ টাকা কেজি। রয়েছে ১০ কেজি ওজনের বোয়াল। দাম চাচ্ছেন ১৪শ’ টাকা কেজি। আবার দিলু মিয়ার দোকানে রয়েছে ৮ কেজি ওজনের বোয়াল। দাম চাচ্ছেন ৮০০ টাকা কেজি। রয়েছে দুই কেজি ওজনের চিতল মাছ। দাম চাচ্ছেন ৬০০ টাকা কেজি। দিলু মিয়া জানান, এবছর মাছের দাম কিছুটা কম। কারণ মানুষের হাতে টাকা নেই। বেচাকেনাও তুলনামূলক কম হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন। মেলার বিভিন্ন দোকানে রুই, মহাশোল, মৃগেল, গ্রাস কার্প, সিলভার কার্প, বাউস, কার্পু, সামুদ্রিক কোরালসহ বিভিন্ন জাতের মাছও রয়েছে। কটিয়াদী উপজেলার আচমিতা এলাকার আব্দুল জব্বার নামে এক ব্যক্তি এক হাজার টাকা কেজি দরে ১০ কেজি ওজনের একটি বোয়াল মাছ কিনেছেন। আবার চাতল এলাকার তৈয়ব মিয়া দুই কেজি ওজনের রুই কিনেছেন সড়ে তিনশ টাকা কেজি করে।
সরারচর এলাকার বিন্নি ব্যবসায়ী জহির মিয়া জানান, তাঁর দোকানে ৩০০ ও ৪০০ টাকা কেজি দামের বিন্নি রয়েছে। ৩০০ টাকার বিন্নিতে চালের হার একটু বেশি। ৪০০ টাকার বিন্নিতে চালের হার খুবই কম। কদমা, চিনি আর গুরের তৈরি খেলা বিক্রি করছেন ১৮০ টাকা কেজি। ছোটদের আকর্ষণ থাকে খেলনা আর বিভিন্ন রাইডের প্রতি। আর বড়দের বেশি আকর্ষণ থাকে মাছ আর বিন্নির দোকানের দিকে। এসব পণ্য বেচাকেনাও ভালই হচ্ছে দেখা দেখা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *