• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কটিয়াদীতে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক, পুলিশের গুলি, গ্রেপ্তার ২৩ জমি অধিগ্রহণের দুই কোটি টাকা ফেরত না দিতে নানা ষড়যন্ত্র দাতার বিরুদ্ধে লাল বাহাদুরের রং পাল্টে হয়ে গেল কুচকুচে কালো নানা অঙ্গসজ্জায় সাজানো হয় কোরবানির পশু পাচারকালে ৬০ বস্তা সার জব্দ করে মামলা পৌনে তিনশ বছরের প্রাচীন শোলাকিয়া ঈদগার প্রস্তুতি ভৈরবে এমবিশন পাবলিক স্কুলের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কুরবানী সম্পর্কীত কিছু মাসায়েল ; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক ছিনতাইকৃত টাকা ও মাদক উদ্ধারে অবদান রাখায় আইজিপি পুরস্কারে ভূষিত ভৈরবের ওসি সফিকুল ইসলাম ইসরায়েলি গণহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ভৈরবে র‌্যাবের হাতে আটক নারীর মৃত্যু

ভৈরবে র‌্যাবের হাতে
আটক নারীর মৃত্যু

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
ভৈরবে র‌্যাবের হাতে আটক হত্যা মামলার আসামি এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। ওই নারী ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বরুণাকান্দি গ্রামের আজিজুল ইসলামের স্ত্রী সুরাইয়া বেগম (৫২)। র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফাহিম ফয়সাল বলেছেন, বিষয়টি নিয়ে র‌্যাবের ময়মনসিংহ কার্যালয় থেকে ব্যাখ্যা দেওয়া হবে। আর লাশের ময়না তদন্ত হবে। তখন মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।
সুরাইয়া বেগম অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূ রেখা আক্তার হত্যার আসামি ছিলেন। সুরাইয়াকে ১৬ মে বৃহস্পতিবার নান্দাইল ও তার ছেলে তাজুলকে র‌্যাব ঢাকা থেকে আটক করেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, একই এলাকার রেখা ও তাজুল গাজীপুরের একটি বিস্কুট কারখানায় কাজের সুবাদে প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য শ্বশুর বাড়িতে নির্যাতিত হচ্ছিলেন রেখা। গত ২৬ এপ্রিল তাকে অসুস্থ অবস্থায় ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সেদিনই রেখার শ্বশুর আজিজুল ইসলামকে জনতা আটক করে পুলিশে দেয়। আর এ ঘটনায় রেখার মা রামিসা খাতুন রেখার স্বামী তাজুল ইসলাম, তাজুলের বাবা আজিজুল ইসলাম ও মা সুরাইয়াকে আসামি করে ২ মে ময়মনসিংহের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে মামলা করেছিলেন। ট্রাইবুনালের নির্দেশে নান্দাইল থানা গত ১৩ মে মামলাটি রেকর্ড করেছে।
র‌্যাব ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা থেকে তাজুল আর নান্দাইল থেকে সুরাইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে বলে জানা গেছে। কিন্তু আজিজুল ইসলাম জানিয়েছেন, মামলার দতন্ত কর্মকর্তা নান্দাইল থানার এসআই নাজমুল হাসান বৃহস্পতিবার খবর দিয়ে সুরাইয়াকে থানায় নিয়ে গিয়েছিলেন। থানার গেট থেকে র‌্যাব সুরাইয়াকে আটক করে নিয়ে যায়।
ভৈরব র‌্যাব ক্যাম্প থেকে ১৭ মে শুক্রবার সকালে সুরাইয়াকে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহম্মদ জানিয়েছেন, কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজের মর্গে ময়না তদন্ত হবার পর প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।
র‌্যাব ময়মনসিংহ অঞ্চলের কমান্ডার মহিবুল ইসলাম খান শুক্রবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছেন, সুরাইয়া বেগম গরমে অসুস্থ হয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান। বিষয়টি আইনী প্রক্রিয়াধীন আছে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *