• শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
পাকুন্দিয়ায় আধা কেজি গাঁজা ৮০ পিস ইয়াবা, ২০ সহস্রাধিক টাকাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক করিমগঞ্জে আ’লীগে ১৮ বছর আহবায়ক কমিটি, পাল্টা কমিটির সংবাদ সম্মেলন থেকে পুরনো আহবায়ককে প্রতিহতের ডাক সরেজমিন প্রতিবেদন, ভারতীয় তালিকাভুক্তি ছাড়া করিমগঞ্জে ২২ মুক্তিযোদ্ধা কিশোরগঞ্জে র‌্যাবের হাতে নিষিদ্ধ আল্লাহর দলের এক সদস্য আটক ইবাদত কবুলের শর্ত : ইখলাছ তথা সকল ইবাদতে একনিষ্ঠতা বজায় রাখা কিশোরগঞ্জে নতুন করোনা রোগি ৪ সুস্থ হয়েছেন নতুন ১৭ জন কিশোরগঞ্জ ও কুলিয়ারচর পৌর নির্বাচন, মনোনয়ন জমা ২০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ ১৬ জানুয়ারি ভৈরবে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি অব্যাহত কিশোরগঞ্জে বিজয় দিবস উদযাপনে সভা অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে প.প. সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে অ্যাডভোকেসি সভা

বিবাহের দ্বিতীয় শর্ত: স্ত্রীকে মহর দেওয়া; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক

বিবাহের দ্বিতীয় শর্ত: স্ত্রীকে মহর দেওয়া

সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক

মহান আল্লাহ রব্বুল আলামীন তাঁর অন্যতম নিদর্শন হিসাবে আমাদের মধ্য থেকেই আমাদের জীবন সঙ্গিণীদেরকে সৃষ্টি করেছেন। এই মর্মে তিনি বলেন, তাঁর নিদর্শনের মধ্যে হল এই যে, তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের মধ্য হতেই তোমাদের সঙ্গিণী সৃষ্টি করেছেন যাতে তোমরা তার কাছে শান্তি লাভ করতে পার আর তিনি তোমাদের মধ্যে পারস্পরিক ভালবাসা ও দয়া সৃষ্টি করেছেন। এর মাঝে অবশ্যই বহু নিদর্শন আছে সেই সম্প্রদায়ের জন্য যারা চিন্তা করে। (সূরা রূম: ২১)
উল্লেখিত আয়াতটি থেকে বুঝা যায় যে, আমাদের স্ত্রীরা আমাদের জন্য অন্যতম নিয়ামত। আমাদের ভাল থাকার গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ। শান্তিতে বসবাস করার অন্যতম একটি মাধ্যম। তারা আমাদের অর্ধাঙ্গিনী। আর এই কারণেই ইসলামী শরিয়ত পুরুষদের উপর স্ত্রীদের অনেক অধিকার রেখেছে। মহান আল্লাহ বলেন, পুরুষদের উপর নারীদেরও অধিকার আছে, যেমন নিয়ম অনুযায়ী পুরুষদের নারীদের উপর অধিকার আছে, অবশ্য নারীদের উপর পুরুষদের বিশেষ মর্যাদা আছে (যেমন- প্রকৃতিগত শক্তি, জিহাদের অনুমতি, দ্বিগুণ মীরাস পাওয়া, অভিভাবকত্ব ও নেতৃত্ব এবং তালাক দেওয়া ও ফিরিয়ে নেওয়া ইত্যাদির ব্যাপারে)এবং আল্লাহ মহাপরাক্রান্ত, প্রজ্ঞাশীল। (সূরা বাকারা: ২২৮)
রাসূল (সা.) বলেছেন, জেনে রেখ! তোমাদের যেরূপ অধিকার রয়েছে তোমাদের স্ত্রীদের উপর, তোমাদের স্ত্রীদেরও তদ্রুপ অধিকার রয়েছে তোমাদের উপর। (তিরমিযি: ৩০৮৭)
যেমন- স্ত্রীর সাথে সদ্ব্যব্যবহার করা। তার ভরণ-পোষণ করা (অর্থাৎ স্বামী যেমন খাবে তেমনি স্ত্রীকেও খাওয়াবে, যেমন মানের পোশাক নিজে পরবে তেমন মানের পোশাক তাকেও পরাবে। যথা সময়ে মাহরাম আত্মীয়-স্বজনকে দেখা করতে দেওয়া। তার ব্যবহারে ধৈর্য ধরা। গৃহস্থালি কাজে স্ত্রীকে সহায়তা করা। মাঝেমধ্যে তাকে উপহার দেওয়া। স্ত্রীর বিপদ-আপদে তাকে সহায়তা করা। মন তরতাজা করার মত বিভিন্ন বৈধ উপকরণগুলো গ্রহণ করা এবং মহর আদায় করা ইত্যাদি।
আর স্ত্রীর মহর আদায় করা ফরয তথা বাধ্যতামূলক। কেননা আল্লাহ রব্বুল আলামীন বলেছেন, তোমাদের জন্য নিষিদ্ধ নারীদের ছাড়া অন্যান্য সকল নারীদেরকে মহরের অর্থের বিনিময়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করতে চাওয়া তোমাদের জন্য বৈধ করা হয়েছে, অবৈধ যৌন সম্পর্কের জন্য নয়। অতঃপর তাদের মধ্যে যাদের তোমরা সম্ভোগ করেছ, তাদেরকে তাদের ধার্যকৃত মহর প্রদান কর। তোমাদের প্রতি কোনও গুনাহ নেই মহর ধার্যের পরও তোমরা উভয়ের সম্মতির ভিত্তিতে মহরের পরিমাণে কম-বেশি করলে, নিশ্চয় আল্লাহ সবিশেষ পরিজ্ঞাত ও পরম কুশলী। (সুরা নিসা: ২৪)
অন্যত্র তিনি বলেন, নারীদেরকে তাদের মহর স্বতঃস্ফূর্ত হয়ে দেবে (তথা-জরিমানা মনে না করে, মনে কোন কষ্ট না রেখে, বরং উদার মনে আদায় করবে), অতঃপর তারা যদি সন্তোষের সঙ্গে তা থেকে তোমাদের জন্য কিছু ছেড়ে দেয় (অর্থাৎ কোন ধরণের চাপ প্রয়োগ কিংবা কোন প্রকার জোর-জবরদস্তি করে নয়, বরং স্ত্রী যদি স্বেচ্ছায়, খুশী মনে মহরের অংশ বিশেষ মাফ করে দেয় কিংবা পুরোপুরিভাবে বুঝে নিয়ে কোন অংশ তোমাদের ফিরিয়ে দেয়) তাহলে তা তৃপ্তির সঙ্গে ভোগ কর। (সূরা নিসা: ৪)
অন্যথায় মহরের অর্থ স্বামীর জন্য হালাল হবে না। বরং স্বামী স্ত্রীর কাছে ঋণগ্রস্ত হয়ে থাকবে এবং পরকালে এই ঋণ পরিশোধ না করার কারণে সে জান্নাত থেকেও বঞ্চিত থাকবে। আল্লাহ রব্বুল আলামীন আমাদের সবাইকে বিষয়টি বুঝার এবং স্ত্রীর মহর পুরোপুরিভাবে সন্তুষ্টচিত্তে আদায় করার তাওফীক দিন। আমীন
প্রচারে : আসুন কুরআন পড়ি, সফল জীবন গড়ি।
আল-শেফা জেনারেল হাসপাতাল (প্রা.), কমলপুর, ভৈরব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!