• বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন |
  • English Version

কিশোরগঞ্জে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা নিয়ে সভা

কিশোরগঞ্জে করোনার দ্বিতীয়
ঢেউ মোকাবেলা নিয়ে সভা

# মোস্তফা কামাল :-

বেশ কিছুদিন ধরে কিশোরগঞ্জসহ সারাদেশেই করোনা সংক্রমণ কিছুটা নিম্নগামী ছিল। কিন্তু আসন্ন শীতে কেবল কিশোরগঞ্জেই নয়, বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বেই সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এমতাবস্থায় সরকার জেলা পর্যায়ে এই ঢেউ মোকাবেলার কর্মকৌশল নির্ধারণের নির্দেশনা দিয়েছে। এর সূত্র ধরেই জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন মহলের মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে দু’ঘন্টা জুম প্রযুক্তিতে সভা হয়েছে। জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় গুরুত্বপূর্ণ মতামত তুলে ধরেন কমিটির সদস্যসচিব সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পাবলিক প্রসিকিউটর শাহ আজিজুল হক, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. সাইফুল আলম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল কাদির মিয়া, ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা, নিকলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সামছুদ্দিন মুন্না, জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ড. নজরুল ইসলাম, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোকাররম হোসেন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইজাজ আহমেদ খান, গণপূর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ইজাজ আহমেদ খান, জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল, জেলা সনাক সভাপতি সাইফুল হক মোল্লা দুলু, জেলা ব্র্যাক সমন্বয়কারী মো. শফিকুল ইসলাম, কেয়ারের সৌহার্দ কর্মসূচীর কর্মকর্তা কোহিনূর পারভীন প্রমুখ।
জেলা প্রশাসক বলেছেন, স্থানীয়ভাবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলার উপায় বা কৌশল সম্পর্কে যেসব প্রস্তাব বা ধারণা উঠে আসবে, সেগুলি সরকারের কাছে জেলা থেকে পাঠানো হবে। সেগুলি বিচার বিশ্লেষণ করে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ কর্মকৌশল নির্ধারণ করবেন। কিশোরগঞ্জে প্রশাসন, আইন শৃংখলা বাহিনী ও স্বাস্থ্য বিভাগসহ সকল মহলের প্রচেষ্টায় এতদিন আমরা করোনা পরিস্থিতি সাফল্যের সঙ্গে মোকাবেলা করতে পেরেছি। মাস্ক ব্যবহারসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করা হয়েছে, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। কিন্তু কিছুদিন ধরে মানুষের মাঝে মাস্ক ব্যবাহার আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে। আবারো মাাইকিংসহ নানাভাবে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করা হবে। প্রয়োজনে আবারো ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে। মানুষের জীবন রক্ষায় যা যা করা প্রয়োজন, তাই তাই করতে হবে। এর জন্য সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। ‘মাস্ক ইজ মাস্ট’, ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ নীতি বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি আরো বলেন, কেবল করোনা মোকাবেলা নয়, খাদ্য উৎপাদনেও আমাদের মনযোগী হতে হবে। শাকসবজি, ধান ও মাছ-মাংসসহ সকল প্রকার খাদ্যোৎপাদন বাড়াতে হবে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণেও তৎপরতা চলছে। কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে কাউকে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সুযোগ দেয়া হবে না বলেও তিনি ঘোষণা দেন।
সিভল সার্জন বলেছেন, এতদিন সংক্রমণ কমতির দিকে থাকলেও কয়েকদিনে আবার বাড়তির লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। তার পরও এখনো কিশোরগঞ্জের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। বিশেষ করে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল ঘোষণা করা হয়েছে। এরপর এখানে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করে নমুনা পরীক্ষার সঙ্কট থেকে উত্তরণের সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। হাইফ্লোনেজাল ক্যানুলা স্থাপনের কারণে এই হাসপাতালের চিকিৎসার মান বহুগুণে বেড়ে গেছে। এখানে করোনা রোগিদের উন্নত মানের চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হচ্ছে। তবে নমুনা পরীক্ষা বাড়াতে হবে। লক্ষণ মনে হলেই পরীক্ষা করানো উচিত। আর লক্ষণ একটু বেশি মনে হলে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে যাওয়া উচিত। অবস্থার বেশি অবনতি ঘটার পর হাসপাতালে গেলে তখন আর তেমন কিছু করার থাকে না। কিশোরগঞ্জে যারা করোনায় মারা গেছেন, তাদের অধিকাংশই নাজুক অবস্থায় হাসপাতালে গিয়ে মারা গেছেন। কেউ জরুরি বিভাগ পর্যন্ত গিয়েই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। কেউ কেউ কয়েক ঘন্টার মধ্যেই মারা গেছেন। কাজেই সবাইকে এ ব্যাপার সজাগ থাকার জন্য তিনি আহবান জানিয়েছেন। তবে যতদিন করোনার ওষুধ বা ভেকসিন না আসবে, ততদিন মাস্কই প্রধান ওষুধ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, আমাদের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ সকল বিশেষজ্ঞই মাস্ককে করোনা মোকাবেলার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার বলে মনে করছেন। তিনি আরো বলেন, এখন সকল হাসপাতালেই কোভিড এবং ননকোভিড রোগিদের চিকিৎসা করানোর মত পৃথক ব্যবস্থাপনা চালুর জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আর জেলা সদরের জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম চালু প্রায় শেষ পর্যায়ে। ভৈরবের ইউএনও জানিয়েছেন, ২৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সেখানকার ট্রমা সেন্টারে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম চালু করা হয়েছে। এতে চিকিৎসা ব্যবস্থায় অনেক উপকার পাওয়া যাচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!