• সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০১:০২ অপরাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
ভৈরবে আরো একজনের করোনা ধরা পড়েছে ভৈরবে ইফতেখার হোসেন বেনু মেয়র নির্বাচিত কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জে মানববন্ধন আজ ভৈরব পৌরসভা নির্বাচন, কে হচ্ছেন পৌর পিতা কিশোরগঞ্জে ইয়াবাসহ র‌্যাবের হাতে মাদক ব্যবসায়ী আটক স্যাটেলাইট যুগে প্রতিটি ঘরই এখন প্রেক্ষাগৃহ, কিশোরগঞ্জের ১৯টি হলই বন্ধ ৭টি চালু বন্ধ থাকার মতই ভৈরবে অটোচালক খুনের ৫ মাস পর খুনি গ্রেফতার, স্বীকারোক্তি লাগামহীন অপরাধীরা, ভৈরবে দুই মাসে তিন হত্যাকাণ্ড জ্ঞান ফেরেনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নারীর ভৈরবে সাবেক রাষ্ট্রপতির এপিএস শাখাওয়াত উল্লাহ করোনায় আক্রান্ত ৩৫ কেন্দ্রের মধ্যে ৩০ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ, আগামীকাল ভৈরব পৌরসভা নির্বাচন

কিশোরগঞ্জে জুমে আইন শৃংখলা সভা, রেড জোন চিহ্নিত হচ্ছে অচিরেই হবে লকডাউন

কিশোরগঞ্জে জুমে আইন শৃংখলা সভা

রেড জোন চিহ্নিত হচ্ছে
অচিরেই হবে লকডাউন

# মোস্তফা কামাল :-

কিশোরগঞ্জে করোনা সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনায় জেলাব্যাপী ‘রেড জোন’ চিহ্নিত করার কাজ চলছে। কাজ প্রায় সমাপ্তির পথে। দু’এক দিনের মধ্যেই এলাকার ম্যাপিং অনুসারে অধিদপ্তরে তালিকা পাঠানো হবে। এরপরই এলাকাভিত্তিক লকডাউন ঘোষণা করা হবে। আজ সোমবার (১৫ জুন) বেলা সাড়ে ১১টা থেকে পৌনে ২টা পর্যন্ত জুম অ্যাপে দুই মাস পর অনুষ্ঠিত জেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় একথা জানানো হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সংযুক্ত হয়ে মতামত তুলে ধরেন পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. গোলাম মোস্তফা, পৌর মেয়র মাহমুদ পারভেজ, র‌্যাব-১৪ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের উপ-পরিচালক লে. কমান্ডার এম শোভন খান, এনএসআই’র উপ-পরিচালক নুসরাত ইসলাম স্মৃতি, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল কাদির মিয়া, ভৈরবের নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা, করিমগঞ্জের নির্বাহী অফিসার তাসলিমা নূর হোসেন, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল, সনাক সভাপতি সাইফুল হক মোল্লা দুলু প্রমুখ।
সভায় পুলিশ সুপার বলেছেন, পুলিশ বাহিনী করোনা পরিস্থিতিতে মাঠ পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করছেন। এতে এরা আক্রান্তও হচ্ছেন। অনেকেই সুস্থ হয়ে কাজেও ফিরেছেন। এই সময়ে কিছু অপরাধমূলক কার্যক্রম সংঘটিত হচ্ছে। এগুলি নিয়ন্ত্রণেরও চেষ্টা চলছে। তবে শহরব্যাপী সিসি ক্যামেরা স্থাপনের একটি সিদ্ধান্ত নেয়া আছে। আইন শৃংখলার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যবিধি পর্যবেক্ষণ ও আরোপের ক্ষেত্রে এগুলি কাজে আসবে। এতে সামগ্রিক পরিস্থিতির আরো উন্নতি হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি করোনা পরিস্থিতিতে মাদকের প্রাদুর্ভাবের কথা উল্লেখ করে এর বিরুদ্ধেও অভিযান অব্যাহত রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
সভায় সিভিল সার্জন জানিয়েছেন, জেলায় এখন পর্যন্ত ৯৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে অনেকে সুস্থ হলেও এখনো আক্রান্ত ৬৪৮ জন আইসোলেশনে রয়েছেন। যে কারণে সংক্রমণের সংখ্যানুপাতে এলাকাভিত্তিক জোনিং করে রেড জোন চিহ্নিত করা হচ্ছে। একেবারে ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায়ে জোনিং করা হচ্ছে। দু’এক দিনের মধ্যেই রেড জোনের তালিকা মন্ত্রণালয়সহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠানো হবে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত আসলে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে অচিরেই এলাকাভিত্তিক লকডাউন ঘোষণা করা হবে। তিনি আরো জানান, কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি ‘করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল’ ঘোষণা করেছে। একটি বড় হাসপাতালকে ডেডিকেটেড ঘোষণা করায় অন্যান্য হাসপাতালের ওপর এখনো চাপ পড়েনি। ৫০০ শয্যার এ হাসপাতালে ১০টি আইসিইউ বেড রয়েছে। চারটি ভেন্টিলেটরের মধ্যে দু’টি স্থাপন করা হয়েছে। একটি এখনো স্থাপন করা হয়নি, আর অন্যটি মেরামত করতে হবে। তবে ‘হাইড্রোনেজাল ক্যানোলা’ দিয়ে ভেন্টিলেটরের কাজ ভালভাবে চালানো সম্ভব। কাজেই আপাতত অন্তত চারটি হাইড্রোনেজাল ক্যানোলা ক্রয় করা দরকার বলে তিনি মনে করেন। প্রতিটির দাম পড়ে আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা। সভায় স্থানীয় অর্থায়নে চারটি হাইড্রোনেজাল ক্যানোলা ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিভিল সার্জন আরো বলেন, সৈয়দ নজরুল হাসপাতালের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে একজন সহকারী অধ্যাপক ছিলেন, আরো একজনকে পদায়ন করা হয়েছে। আর পিসিআর ল্যাবের জন্য আরো টেকনোলজিস্ট দরকার। টেকনোলজিস্ট কম থাকায় মাত্র এক শিফটে ৯৪টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে। মহাখালীর আইপিএইচ ল্যাব থেকেও নমুনা পরীক্ষা করানো হচ্ছে। এর পরও অনেক নমুনা মজুদ পড়ে থাকে। সরকার নতুন ১৫শ’ মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তখন আরো টেকনোলজিস্ট পাওয়া গেলে এখানকার ল্যাবে দুই শিফটে দ্বিগুণ সংখ্যক নমুনা পরীক্ষা করা যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
সভায় করোনার ডামাডোলে ডেঙ্গু প্রসঙ্গ যেন আড়ালে পড়ে না যায়, সে বিষয়েও কেউ কেউ গুরুত্বারোপ করেন। এর জবাবে মেয়র মাহমুদ পারভেজ জানিয়েছেন, আগে মশা নিধনের জন্য ফগার মেশিন ব্যবহার করা হতো। এখন লার্ভা নিধনে পৌর এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে লার্ভিসাইড স্প্রে করা হচ্ছে।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, নমুনা পরীক্ষার সময় অনেকেই ভুল মোবাইল ফোন নম্বর দেন, ভুল ঠিকানা দেন বলে শোনা যায়। পজিটিভ হলে এরা এলাকা ছেড়ে দেয়। তখন তাদেরকে চিহ্নিত করা যায় না। ফলে কেউ কেউ নমুনা সংগ্রহ করার সময় ওই ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। এ বিষয়টি বিবেচনা করার ওপর জেলা প্রশাসক গুরুত্বারোপ করেছেন। আবার অনেকেই রোগ নিয়ে বাজার করতে চলে যান। একজন ব্যক্তি নমুনা দেয়ার সময় থেকে পরীক্ষার ফল আসা পর্যন্ত যেন আইসোলেশনে থাকেন, সে বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে বলে তিনি মনে করেন। আর ওষুধের দোকান ছাড়া অন্যান্য দোকানপাট সকাল ১০টায় খুলে বিকাল ৪টায় বন্ধ করে ফেলতে হবে মর্মে সব জায়গায় সতর্কীকরণ ব্যানার ঝোলানো হবে বলেও জেলা প্রশাসক ঘোষণা দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!