• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২৪ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
একই বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক শহীদ বুদ্ধিজীবী বিদায়ী অধ্যক্ষ-সভাপতি দ্বন্দ্বে শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বন্ধ বাজিতপুরে বইয়ের কভারের আদলে বাড়ির সীমানা প্রাচীর দেখতে মানুষের ভিড় (আপডেট) স্মার্ট দেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে…… নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম কারামুক্ত কুলিয়ারচরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসানকে নাগরিক সংবর্ধনা ১২ কেজি গাঁজাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার লায়ন মশিউর আহমেদ ওয়েশকা ইন্টারন্যাশনাল জাপান বাংলাদেশ ন্যাশনাল চ্যাপ্টার এর দ্বিতীয় ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভৈরবে ১ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই গৃহবধূ জন্ম দিলেন ৬ সন্তান ভৈরবে শিমুলকান্দি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নবম বর্ষে পদার্পণে কেক কাটা ও সার্টিফিকেট বিতরণ

কিশোরগঞ্জে বোনের বিরুদ্ধে ভাইয়ের প্রার্থিতার শেষ চেষ্টা

কিশোরগঞ্জে বোনের বিরুদ্ধে
ভাইয়ের প্রার্থিতার শেষ চেষ্টা

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসনে বোনের বিরুদ্ধে নির্বাচন করার শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম। বাছাইয়ে বাদ পড়ে তিনি নির্বাচন কমিশনে বুধবার আপীল করেছেন। নির্বচান কমিশনের কর্মকর্তাদের কথাবার্তায় তিনি মনোনয়ন ফিরে পাবেন বলেও আশাবাদী। এরা দুজনই মুক্তিযুদ্ধকালীন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের সন্তান।
এই আসনের বর্তমান এমপি সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। তবে আগে থেকেই বিভিন্ন এলাকায় সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ করে আসছিলেন তাঁরই বড়ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম। তিনি দলীয় মনোনয়ন ফরমও সংগ্রহ করেছিলেন। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমাও দিয়েছিলেন। কিন্তু গত ৩ ডিসেম্বর বাছাইয়ে তাঁর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ক্ষেত্রে মোট ভোটারের একভাগের সমর্থনসূচক স্বাক্ষর জমা দিতে হয়। এর মধ্যে থেকে দৈবচয়নের মাধ্যমে ১০ জনের বাড়িতে গিয়ে সমর্থনের সত্যতা যাচাই করতে হয়। তাতে সাফায়েতুল ইসলামের পক্ষে একজন মৃত ব্যক্তির সমর্থন পাওয়া যায়। তাতেই মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।
তবে সাফায়েতুল ইসলাম জানিয়েছেন, এলাকার মোট ৫ হাজার ১৪১ জন ভোটারের সমর্থন জমা দেয়ার বাধ্যবাদকতা ছিল। তিনি জমা দিয়েছিলেন ৫ হাজার ৮০০ জনের। ফলে তিনি বুধবার নির্বাচন কমিশনে আপীল করেছেন। কর্মকর্তাদের কথা বলে তিনি মনোনয়ন ফিরে পাবেন বলে আশাবাদী হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।
এদিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশ্রাফুল আলম জানিয়েছেন, কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের বাতিল হওয়া প্রার্থী বিএনপির সাবেক এমপি মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান ও কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনের নৌকার বাতিল হওয়া প্রার্থী নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ, একই আসনের বাতিল হওয়া প্রার্থী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার গোলাম কবির ভূঁইয়া এবং কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের বাতিল হওয়া কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রার্থী মো. সাজ্জাদ হোসেনও আপীল করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *