• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
একই বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক শহীদ বুদ্ধিজীবী বিদায়ী অধ্যক্ষ-সভাপতি দ্বন্দ্বে শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বন্ধ বাজিতপুরে বইয়ের কভারের আদলে বাড়ির সীমানা প্রাচীর দেখতে মানুষের ভিড় (আপডেট) স্মার্ট দেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে…… নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম কারামুক্ত কুলিয়ারচরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসানকে নাগরিক সংবর্ধনা ১২ কেজি গাঁজাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার লায়ন মশিউর আহমেদ ওয়েশকা ইন্টারন্যাশনাল জাপান বাংলাদেশ ন্যাশনাল চ্যাপ্টার এর দ্বিতীয় ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভৈরবে ১ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই গৃহবধূ জন্ম দিলেন ৬ সন্তান ভৈরবে শিমুলকান্দি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নবম বর্ষে পদার্পণে কেক কাটা ও সার্টিফিকেট বিতরণ

বাধ্যবাধকতার জন্য অনেক কথা আমি বলতে পারি না —- এমপি লিপি

বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি এমপি -পূর্বকণ্ঠ

বাধ্যবাধকতার জন্য অনেক
কথা আমি বলতে পারি না
—————— এমপি লিপি

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসনের নৌকার প্রার্থী সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি এমপির সঙ্গে ৬ ডিসেম্বর বুধবার দুই উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের মতবিনিময় সভা ছিল। সেখানে মুক্তিযোদ্ধারা বলেছেন, এই আসনে জাকিয়া নূর লিপির পরিবার থেকে নৌকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। যাদের বাবার প্রতীক ছিল নৌকা, তারা নৌকার বিরুদ্ধে প্রার্থী হতে পারেন না। নৌকা মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক। নৌকা ছাড়া মুক্তিযোদ্ধারা অন্য কোথাও ভোট দিতে পারেন না। দিলে সেটা হবে মুক্তিযুদ্ধের সাথে বেঈমানি।
মুক্তিযোদ্ধাদের এসব বক্তব্যের জবাবে জাকিয়া নূর লিপি বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে আমারও অনেক কথা বলার ছিল। কিন্তু নির্বাচনী আচরণবিধির কারণে বলতে পারছি না। মুক্তিযোদ্ধা ভাইয়েরা সুন্দর ভাষায় অনেক কথা বলে দিয়েছেন। বুধবার দুপুরে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্স ভবনে দুই উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে জাকিয়া নূর লিপি এমপির মতবিনিময় সভায় এসব বক্তব্য উঠে আসে।
উল্লেখ্য, এই আসনে জাকিয়া নূর লিপির চাচাত ভাই জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মাঠে সক্রিয় রয়েছেন। জাকিয়া নূর লিপির বড়ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলামও প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু মৃত সমর্থকের স্বাক্ষরের কারণে মনোনয়ন বাতিল হয়ে গেছে। তিনি প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে বুধবার আপীল করেছেন বলে জানিয়েছেন।
জাকিয়া নূর লিপি এমপি বলেছেন, ‘আমার ভাই সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী হাসিনা আপা আমার ওপর ভরসা করে উপ-নির্বাচনে এই আসনে মনোনয়ন দিয়েছিলেন। প্রথমবার এমপি হয়েছিলাম। অনেক ভুলত্রুটি হতে পারে। ভুলত্রুটি হয়ে থাকলে আপনারা নিজগুণে ক্ষমা করে দিবেন। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে আমার বাবা শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আপনারা তাঁর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ করেছিলেন। কাজেই আমাকে সমর্থন দেওয়ায় আমি আপনাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই।’ তিনি শহীদ জাতীয় চার নেতার প্রতিও শ্রদ্ধা জানান। অনুষ্ঠানের শুরুতেই মুুক্তিযোদ্ধারা তাঁকে ফুল দিয়ে মোড়ানো একটি নৌকা উপহার দিয়েছেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার কামালের সভাপতিত্বে আয়োজিত মতবিনিময় সভার শুরুতেই মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদের সম্মানে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এমএ আফজাল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ডা. মাহবুব ইকবাল, মো. আসাদ উল্লাহ, একেএম মাহবুবুল আলম, এবি সিদ্দিক ও মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা বাসির উদ্দিন ফারুকী, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ভূপাল নন্দী, ডা. এবি সিদ্দিক, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান মাছুমা আক্তার, ফৌজিয়া জলিল ন্যান্সি প্রমুখ। মুক্তিযোদ্ধারা দুই উপজেলায় নির্বাচনী কমিটি গঠন করে নৌকার বিজয়ে মাঠে সক্রিয় কাজ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *