• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
একই বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক শহীদ বুদ্ধিজীবী বিদায়ী অধ্যক্ষ-সভাপতি দ্বন্দ্বে শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বন্ধ বাজিতপুরে বইয়ের কভারের আদলে বাড়ির সীমানা প্রাচীর দেখতে মানুষের ভিড় (আপডেট) স্মার্ট দেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে…… নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম কারামুক্ত কুলিয়ারচরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসানকে নাগরিক সংবর্ধনা ১২ কেজি গাঁজাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার লায়ন মশিউর আহমেদ ওয়েশকা ইন্টারন্যাশনাল জাপান বাংলাদেশ ন্যাশনাল চ্যাপ্টার এর দ্বিতীয় ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভৈরবে ১ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই গৃহবধূ জন্ম দিলেন ৬ সন্তান ভৈরবে শিমুলকান্দি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নবম বর্ষে পদার্পণে কেক কাটা ও সার্টিফিকেট বিতরণ

বাজিতপুরে পাটুলী ঘাটে ফেরি চলাচল শুরু, হাওরবাসীর উচ্ছ্বাস

# মোহাম্মদ খলিলুর রহমান :-
দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আবারো কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে ঘোড়াউত্রা নদীতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ফেরি সার্ভিস আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হয়েছে।
আজ ৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে পাটুলী নৌ ঘাট থেকে হুমাইপুর ঘাট দুই কিলোমিটার নদী পথে ফেরি চলাচল চালু করা হয়।
বাজিতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শামীম হুসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অষ্টগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম। এই সময় উপস্থিত ছিলেন অষ্টগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. দিলশাদ জাহান, বাজিতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, অষ্টগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোর্শেদ জামান, কিশোরগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মনির হোসেন, কিশোরগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. ওসমান মিয়া। এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য লোকজনসহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন অংশ নেয়।
২০২০ সালের কিশোরগঞ্জের ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম ও হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার সঙ্গে শুকনো মৌসুমে সড়কপথে গাড়ি দিয়ে চলাচলের জন্য ঘোড়াউত্রা নদীতে ফেরি চালু করার সিদ্ধান্ত নেয় সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর। সে অনুযায়ী কাজ করা হলেও ফেরি চলাচল করেনি। এই বছরের ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ উপলক্ষে দুই দিনের জন্য ফেরি সার্ভিস চালো হলেও অজানা কারনে বন্ধ হয়ে যায়। হাওরের প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত বাজিতপুর পাটুলীঘাট দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ এ পথ দিয়ে চলাচল করে। হাওর অঞ্চলের মানুষকে সময় ও অর্থ বাঁচাতে ফেরি চলাচল ছিল সময়ের দাবি। বহুল প্রত্যাশিত দাবি বাস্তবায়ন হওয়া হাওরবাসীর উল্লসিত।
হুমাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ঘোড়াউত্রা নদীতে ফেরি সার্ভিস চালু হবার কারণে হাওরবাসীর অনেক উপকার হয়েছে। বিশেষ করে বাজিতপুরে হুমাইপুর-মাইজচর ইউনিয়ন, অষ্টগ্রাম ও হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মানুষের। তারা এই ফেরি ব্যবহার করে অনেক কম সময়ে জেলা শহরসহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করতে পারবেন।
অষ্টগ্রামের বাসিন্দা মুহাম্মদ জাকির হোসেন জানিয়েছেন, বাজিতপুরের পাটুলী এলাকায় ফেরি সার্ভিস চালু হবার কারণে অষ্টগ্রামবাসীর যাতায়াত সুবিধা এখন কল্পনাতীত। এখন জেলা শহর বা রাজধানী থেকে ফিরে কেউ পাটুলী ঘাটের ফেরি থেকে নেমে ইঞ্জিনচালিত যানবাহনে ৪০ মিনিটে অষ্টগ্রাম সদরে চলে যেতে পারবে। তবে তিনি আশঙ্কা করছেন এই ফেরি চলাচল নির্বাচনের পর থেমে যায় কি না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *