• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৬:০২ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কটিয়াদীতে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক, পুলিশের গুলি, গ্রেপ্তার ২৩ জমি অধিগ্রহণের দুই কোটি টাকা ফেরত না দিতে নানা ষড়যন্ত্র দাতার বিরুদ্ধে লাল বাহাদুরের রং পাল্টে হয়ে গেল কুচকুচে কালো নানা অঙ্গসজ্জায় সাজানো হয় কোরবানির পশু পাচারকালে ৬০ বস্তা সার জব্দ করে মামলা পৌনে তিনশ বছরের প্রাচীন শোলাকিয়া ঈদগার প্রস্তুতি ভৈরবে এমবিশন পাবলিক স্কুলের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কুরবানী সম্পর্কীত কিছু মাসায়েল ; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক ছিনতাইকৃত টাকা ও মাদক উদ্ধারে অবদান রাখায় আইজিপি পুরস্কারে ভূষিত ভৈরবের ওসি সফিকুল ইসলাম ইসরায়েলি গণহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

শোলাকিয়ায় একদিন আগেই বিভিন্ন জেলার কয়েকশ মুসল্লি

শোলাকিয়া ঈদগাহ মসজিদে আলোকসজ্জা -পূর্বকণ্ঠ

শোলাকিয়ায় একদিন
আগেই বিভিন্ন জেলার
কয়েকশ মুসল্লি

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
দেশের ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন ঈদগাহ শোলাকিয়ার আকর্ষণ দেশব্যাপী। প্রতি বছরই দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার মুসল্লি এখানে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করতে আসেন। ঈদের একদিন আগেই চলে আসেন কয়েকশ মুসল্লি। ঈদের দিন ভোরবেলা থেকে রাজার্ভ বাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে আসতে থাকেন আরও হাজার হাজার মুসল্লি। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। এছাড়া ঈদগাহ মসজিদ এবং ঈদগাহর সীমানা প্রাচীরসহ পাশের রাস্তায় মনোরম আলোকসজ্জা করা হয়েছে।
শুক্রবার ইফতারের পর শোলাকিয়া ঈদগাহর পাশের বাগেজান্নাত মসজিদে গিয়ে জানা গেছে, ইতোমধ্যে বিভিন্ন জেলার তিন শতাধিক মুসল্লি এখানে এসে অবস্থান নিয়েছেন। এসময় কয়েকজন বৃদ্ধের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাঁরা পাকিস্তান আমল থেকে এখানে ঈদুল ফিতরের নামাজ পড়তে আসছেন। একজন আসতেন তাঁর দাদার সঙ্গে। দাদা বেঁচে নেই। তিনি নিজেই এখন বৃদ্ধ। তিনি করোনাকালীন সময় বাদ দিয়ে এখনও নিয়মিত আসছেন।

বাগে জান্ন্ত মসজিদে বিভিন্ন জেলার কয়েকজন মুসল্লি -পূর্বকণ্ঠ

নারায়ণগঞ্জ পৌর এলাকার শহীদনগরের মুদি ব্যবসায়ী শহীদ মিয়া (৬৫) বৃহস্পতিবার রাতেই চলে এসেছেন। নারায়ণগঞ্জ শহরের আলহাজ্ব সিরাজ ম-ল (৬৫) জানালেন, তিনি এখানে ৪৯ বছর ধরে নামাজ পড়তে আসছেন। তাঁর দাদা ইলিম মাতব্বর ও দাদার বন্ধু আব্দুল পাঠান একসঙ্গে নিয়মিত শোলাকিয়ায় নামাজ পড়তে আসতেন। তিনিও দাদার সঙ্গে আসতেন। দাদা আর দাদার বন্ধু মারা গেছেন। কিন্তু সিরাজ ম-ল এখনও আসছেন। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ এলাকার তোফাজ্জল মৌলাও (৭১) পাকিস্তান আমল থেকে আসছেন।
নরসিংদীর মনোহরদী এলাকার হারুন-অর রশিদ (৭০) এবং রায়পুরা এলাকার জামাল উদ্দিন (৬৭) পাকিস্তান আমল থেকে এখানে নিয়মিত নামাজ পড়ছেন। তাঁরা জানান, সেইসময় বাড়ি থেকে ১৫ টাকা নিয়ে আসলে কিছু টাকা ফেরত নিয়ে বাড়ি ফিরতেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর এলাকার রফিকুল ইসলাম (৬৫) আসছেন ২০ বছর ধরে। জামালপুর সদরের তোফাজ্জল হোসেন (৬০), শরাফত আলী (৬৫) ও মেহের আলী (৬৬) শোলাকিয়ার কথা শুনে এবারই প্রথম আসলেন। শেরপুরের নালিতাবাড়ির আব্দুর রউফ (৬৮) এখানে ১০ বছর ধরে নামাজ পড়তে আসছেন। কুমিল্লার চান্দিনার ফরিদ উদ্দিন (৩৬) এবার প্রথম আসলেন বিশাল জামাতে নামাজ আদায় করবেন বলে। তাঁরা জানান, এই বাগেজান্নাত মসজিদে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন জেলার তিন শতাধিক মুসল্লি অবস্থান নিয়েছেন। অনেকেই কিশোরগঞ্জ শহর দেখতে বেরিয়েছেন। রাতে রাতে দেশের নানা প্রান্ত থেকে আরও প্রচুর মুসল্লি আসবেন।
এদিকে শোলাকিয়া ঈদগাহ মসজিদের ইমাম হাফেজ তাকরিম জানিয়েছেন, বিভিন্ন জেলার মুসল্লিরা প্রথমে ঈদগাহ মসজিদে এসেছিলেন। তাঁদেরকে পার্শ্ববর্তী বাগেজান্নাত মসজিদে পাঠানো হয়েছে। কারণ রাতের বেলায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আরও প্রচুর মুসল্লি আসবেন। তাঁদেরকে শোলাকিয়া ঈদগাহ মসজিদে স্থান দেয়া হবে। এছাড়াও শহরের বিভিন্ন মসজিদ, আবাসিক হোটেল এবং আত্মীয়স্বজনের বাসায়ও অনেক মুসল্লি অবস্থান নিয়েছেন।
ঈদগাহ কমিটির পক্ষ থেকে ঈদগাহ মসজিদ ও সীমানা প্রাচীরসহ পার্শ্ববর্তী রাস্তা মনোরম আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে বহু কৌতুহলি মানুষ আজ ইফতারের পর থেকে ঈদগাহ দেখতে যাচ্ছেন। তবে বাড়তি নিরাপত্তার কারণে আগত দর্শকদের দায়িত্বরত আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের জেরার মুখেও পড়তে হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *