• বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
ভিক্ষা জীবন ছেড়ে কাজ ও বাসস্থান চান কুলিয়ারচরের হিজড়ারা ভৈরবের নির্ভীক নারী শারমিন আক্তার জুঁই স্বেচ্ছাশ্রমের অদম্য কোভিডযোদ্ধা সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আরও শক্তিশালীভাবে এগিয়ে যাবে যায়যায়দিন …… এমডি কিশোরগঞ্জে ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম শুরু হলো হোসেনপুরে ইউপি নির্বাচনে সরে দাঁড়ালেন ১০ জন প্রার্থী রূপগঞ্জের হাসেম ফুডস লি. অগ্নিকাণ্ডে মারা যাওয়া ১৯ জনের পরিবারকে অনুদান কিশোরগঞ্জে ৪৫০ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক কিশোরগঞ্জে উদ্যোক্তাদের নিয়ে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যোৎপাদন প্রশিক্ষণ র‍্যাবের হাতে ভারতীয় মালামালসহ এক চোরাচালানকারী আটক কিশোরগঞ্জে যানজট নিরসন সংক্রান্ত সভা ৬শ’ অটোর ৯টি রুট

বিএডিসির বীজ বিলম্বে ছাড় লাভবান প্রাইভেট কোম্পানি পড়ে আছে বিএডিসির বীজ

বিএডিসির বীজ বিলম্বে ছাড়
লাভবান প্রাইভেট কোম্পানি
পড়ে আছে বিএডিসির বীজ

# মোস্তফা কামাল :-

কিশোরগঞ্জে নির্ধারিত সময়ের ২২ দিন পর শুরু হয় বিএডিসির বোরো বীজের বিপনন। বীজতলা প্রস্তুত হয়ে আছে। অথচ বাজারে কৃষকের আস্থাভাজন বিএডিসির বীজ নেই। এই সুযোগে বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানি বীজ নিয়ে রমরমা ব্যবসা করেছে বলে জানিয়েছেন বিএডিসির বীজ ডিলার এবং কৃষকগণ। এদিকে ডিলারদের কাছে বিএডিসির বীজ মজুদ পড়ে আছে। তারা পড়েছেন ক্ষতির মুখে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, গতবছর বিএডিসির বীজ প্রতি কেজিতে কৃষি মন্ত্রণালয় ১০টাকা করে ভর্তুকি দিয়েছিল। কিন্তু এবার ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণ করতে গিয়ে বিলম্ব করে ফেলেছে। প্রথমে মন্ত্রণালয় ঘোষণা দিয়েছিল ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণ করে ১২ অক্টোবর থেকে বীজ বিপনন শুরু করবে। গুদামে বীজ মজুদ থাকার পরও সময়মত ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণ না হওয়ায় পরবর্তীতে ঘোষণা দেয় ২০ অক্টোবর থেকে বীজ বিপনন শুরু হবে। ২০ অক্টোবরও বিপনন শুরু করা হয়নি। শেষ পর্যন্ত কেজিতে ৩ টাকা ভর্তুকি ঘোষণার মধ্যে দিয়ে ৩ নভেম্বর থেকে বিপননের অনুমতি মেলে। এবছর প্রতি কেজি ব্রিধান-২৮ বীজের ডিলার পর্যায়ে দাম রাখা হয়েছে ৪২ টাকা ৫০ পয়সা। আর কৃষক পর্যায়ে বিক্রি হবে ৫০ টাকা। অন্যদিকে ব্রিধান-২৯ বীজ ডিলার পর্যায়ে প্রতি কেজির দাম রাখা হয়েছে ৪২ টাকা টাকা। আর কৃষক পর্যায়ে বিক্রি হবে ৪৯ টাকা।
এদিকে আগাম বন্যার আশংকায় বিস্তীর্ণ হাওরাঞ্চলে বোরো আবাদ আগাম শুরু হয় বলে এখানে বীজতলা তৈরি হয়ে গেছে অনেক আগে থেকেই। যে কারণে হাওরে বিএডিসির বীজের অভাবে এই সুযোগে বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানি হাওরাঞ্চলে আগেভাগে তাদের বীজ বাজারজাত করে ফেলেছে। বহু কৃষক বীজতলায় এসব বীজ বপনও করে ফেলেছেন। জেলার প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ বোরো আবাদ হয় এই হাওরাঞ্চলে। কয়েকজন ডিলার জানিয়েছেন, ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণ বিলম্বিত হওয়ায় তারা কৃষি বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাদের অনুরোধ জানিয়েছিলেন যেন বীজগুলো আগেই বিপনন শুরু করে দেয়া হয়। ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণ হলে তখন নতুন মূল্যে ডিলারগণ টাকা পরিশোধ করে দেবেন। তাহলে অন্তত সময়মত কৃষকের কাছে বীজগুলো পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে। কিন্তু তাদের অনুরোধ কোন কাজে আসেনি। অথচ ময়মনসিংহ এবং সিলেট অঞ্চলে ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণের আগেই ডিলারদের কাছে স্থানীয় গুদাম কর্তৃপক্ষ বীজ বিক্রি করে ফেলেছেন। পরবর্তীতে ডিলারগণ পুনর্নির্ধারিত মূল্যে দাম পরিশোধ করেছেন। এই সুযোগে কিশোরগঞ্জের হাওরাঞ্চলের কিছু কৃষক সিলেট অঞ্চল থেকে আগেই কিছু বিএডিসির বীজ সংগ্রহ করেছিলেন। অন্যদিকে কিশোরগঞ্জে বিলম্বে বিএডিসির বীজ বিপনন শুরু করায় এক সঙ্গে বেশি করে বীজ ডিলারদের বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এখন জেলার ২৬৯ জন ডিলারের অনেকের কাছেই প্রচুর অবিক্রিত বীজ পড়ে আছে। উপর মহলের দীর্ঘসূত্রিতার কারণে প্রাইভেট কোম্পানিগুলি এবার বেশ লাভবান হয়েছে বলেও কোন কোন ডিলার মন্তব্য করেছেন। এর ফলে কেবল ডিলারগণ নন, বিএডিসিও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে ডিলারগণ জানিয়েছেন। কারণ এবার বিএডিসির গুদামে অনেক বীজ আটকে গেছে। হাওর উপজেলা নিকলীর কুর্শা গ্রামের কৃষক আব্দুল আউয়ালও তাদের এলাকায় বিলম্বে বিএডিসির বীজ গেছে বলে জানিয়েছেন। তবে এবার জেলার ৬৫ হাজার কৃষককে সরকার বিনামূল্যে প্রণোদনার বীজ দিয়েছে। তারা অনেক আগেই বীজ পেয়েছেন। ফলে বীজ উদ্বৃত্ত পড়ে থাকার পেছনে প্রণোদনার বীজেরও কিছুটা ভূমিকা আছে বলে ডিলার সমিতির সভাপতি সামিউল হক ভূঁইয়া জানিয়েছেন।
এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. সাইফুল আলমকে প্রশ্ন করলে তিনিও এবার ভর্তুকি পুনর্নির্ধারণে বিলম্ব হওয়ায় হাওরাঞ্চলে বিলম্বে বিএডিসির বীজ গেছে বলে স্বীকার করেছেন। তবে হাওরাঞ্চল ছাড়া জেলার উঁচু উপজেলাগুলোতে কোন সমস্যা হবে না বলে তিনি মনে করেন। কারণ এসব এলাকায় এখনও বীজতলা তৈরি শুরু হয়নি। ফলে হাওরাঞ্চলে কিছু সমস্যা হলেও এসব উপজেলায় বিএডিসির বীজ নিয়ে কোন সমস্যা হবে না বলে তিনি আশা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!