• বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
ভিক্ষা জীবন ছেড়ে কাজ ও বাসস্থান চান কুলিয়ারচরের হিজড়ারা ভৈরবের নির্ভীক নারী শারমিন আক্তার জুঁই স্বেচ্ছাশ্রমের অদম্য কোভিডযোদ্ধা সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আরও শক্তিশালীভাবে এগিয়ে যাবে যায়যায়দিন …… এমডি কিশোরগঞ্জে ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম শুরু হলো হোসেনপুরে ইউপি নির্বাচনে সরে দাঁড়ালেন ১০ জন প্রার্থী রূপগঞ্জের হাসেম ফুডস লি. অগ্নিকাণ্ডে মারা যাওয়া ১৯ জনের পরিবারকে অনুদান কিশোরগঞ্জে ৪৫০ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক কিশোরগঞ্জে উদ্যোক্তাদের নিয়ে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যোৎপাদন প্রশিক্ষণ র‍্যাবের হাতে ভারতীয় মালামালসহ এক চোরাচালানকারী আটক কিশোরগঞ্জে যানজট নিরসন সংক্রান্ত সভা ৬শ’ অটোর ৯টি রুট

ঈদে মিলাদুন্নবীর জুলুসে ভৈরবে মানুষের ঢল

ঈদে মিলাদুন্নবীর জুলুসে
ভৈরবে মানুষের ঢল

# হাজী মুহাম্মদ রুবেল হোসেন :-

যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ভৈরবে পালিত হয়েছে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। এই উপলক্ষে ২০ অক্টোবর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ভৈরব পৌর শহরের ঐতিহ্যবাহী হাজী আসমত কলেজ মাঠ থেকে আহ্লে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত এর আয়োজনে বের করা হয় ঐতিহ্যবাহী জশনে জুলুস। এসময় বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত জশ্নে জুলুস হাজী আসমত কলেজ মাঠ নবীপ্রেমী মানুষের ঢল নামে। পরে কলেজ মাঠ থেকে জুলুসটি ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়ক ঘুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সিলেট বাসস্ট্যন্ডের ফল মার্কেটের সামনে গিয়ে শেষ হয়। জুলুসে ভৈরব উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌরসভার ওয়ার্ডের নবীপ্রেমি লোকজন অংশ নেন। জশনে জুলুস পরিচালনা করেন পীরে তরিকত মাওলানা ক্বারী উছমান গণি ক্বাদেরী ও মাওলানা শায়েখ আতাউর রহমান মোজাহেদী।
আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত ভৈরব উপজেলা শাখা সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ মুজিবুর রহমান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শায়েখ আল্লামা আবু সুফিয়ান খাঁন আবেদী আল-ক্বাদেরী।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল মনসুর, ভৈরব উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. আল মামুন, ভৈরব ফল ব্যবসায়ী মালিক সমিতি সভাপতি আলহাজ্ব মো. আবুল কালাম।
সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন জশনে জুলুস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আলহাজ্ব এ.আই.এম মাহবুব উল্লাহ আল ক্বাদেরী, সদস্য সচিব ভৈরব পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিব রায়হান।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলন, খন্দকার রুহুল আমিন, শাহ মুহাম্মদ খন্দকার দ্বীন ইসলাম, মুহাম্মদ আলী শিশু মিয়া, আহমাদ আলী ভান্ডারী, মাওলানা রহমতুল্লাহ কামাল, হাজী মুহাম্মদ রুবেল হোসেন, অধ্যাপক মুহাম্মদ ফাহিম রেযা খাঁন, হাজী মো. মোমেন মিয়া, পীরজাদা মাওলানা শফিকুল ইসলাম ফারুকী, মাওলানা মুনিরুজ্জামান ভূঁইয়া, মাওলানা এমদাদুল হক বখশী, হাজী মো. উবায়দুল্লাহ মিয়া ও মো. আলাউদ্দীন আলম প্রমুখ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, হিজরী সনের অন্যতম মাস হলো রবিউল আওয়াল মাস। যেই মাসের ১২ তারিখ দুনিয়ার জমিনে শুভাগমন করেন সৃষ্টিকুলের শ্রেষ্ঠতম রসুল নবী মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (সা.)। যেই নবীজীর শুভাগমনে খুশি হয়েছিল তামাম মাখলুকাত জুলুস করছিলেন আল্লাহর অসংখ্য অগণিত ফেরেশতা। এই জশ্নে জুলুস হচ্ছে নবী প্রেমের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বক্তারা কুমিল্লায় পূজা মণ্ডপে ঘটে যাওয়া ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবী জানান।
জুলুস ও আলোচনা শেষে আল্লামা মুফতী জহিরুল ইসলাম ফরিদী মিলাদ ও মোনাজাত পরিচালনার মাধ্যমে পবিত্র জশনে জুলুস ও আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!