• বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২১ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
১০১ কেজি গাঁজাসহ ১০ জন মাদক ব্যবসায়ী র‌্যাবের হাতে আটক ভৈরবের ৭ ইউপিতে মার্কা প্রচারের লড়াইয়ে প্রার্থীরা ভৈরবে বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদের সু’ক্রাফট কমন সার্ভিস সেন্টার পরিদর্শন করিমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্তৃক ব্র্যাক কর্মসূচি পরিদর্শন ওএমএস’র দোকানে নারী-পুরুষের ভিড় কিশোরগঞ্জে করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সুজনের আলোচনা সভা কিশোরগঞ্জে ডিজিটাল সেন্টারের ১১ বছর পূর্তির আলোচনা এবং পুরস্কার কিশোরগঞ্জে প্রায় ৫ লাখ শিশু খাবে ভিটামিন-এ ভিক্ষা জীবন ছেড়ে কাজ ও বাসস্থান চান কুলিয়ারচরের হিজড়ারা ভৈরবের নির্ভীক নারী শারমিন আক্তার জুঁই স্বেচ্ছাশ্রমের অদম্য কোভিডযোদ্ধা

ইসলাহুন নফস বা আত্মশুদ্ধি (শেষ পর্ব)

সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক

অন্তরের রোগ সমূহ থেকে নিজেকে মুক্ত করার নামই হল ইসলাহুন নফস বা আত্মশুদ্ধি। আর অন্তরের রোগ সমূহ থেকে কয়েকটি রোগ সম্পর্কে আমরা গত পর্বে জেনেছিলাম।  সেগুলো হলো, ১। সত্যকে অপছন্দ করা ২। ইবাদতের বেলায় মনের অবাস্তব আকাঙ্খা ৩। কুপ্রবৃত্তির অনুসরণ করা ৪। অন্তরে মন্দ চিন্তা-ভাবনাকে প্রশ্রয় দেওয়া ৫। দ্বীনি ইলম বা জ্ঞানের মাধ্যমে দুনিয়া তালাশ করা ৬। অন্যের দোষ তালাশ করা ৭। নিজেকে নিরাপদ মনে করা ৮। হিংসা-বিদ্বেষ পোষণ করা ৯। কৃপণতা করা ১০। লোভের শিকার হওয়া ১১। সর্বদা অতিমাত্রায় আনন্দিত ও খুশিতে থাকা ১২। রিয়া বা লৌকিকতা প্রদর্শন করা ১৩। অহংকার করা ১৪। অন্যের ব্যপারে খারাপ ধারণা পোষণ করা। আর এ পর্বেও আমরা আরো কয়েকটি রোগ সম্পর্কে জানব ইনশাআল্লাহ। আর তা হলো:১৫। রাগ করা। মানুষের অন্তরের মারাত্মক একটি ব্যাধি হল রাগান্বিত হওয়া বা রাগ করা। রাগ অনেক সময় মানুষকে নিয়ন্ত্রণহীন করে ফেলে। ন্যায়বোধ থেকে দূরে সরিয়ে ফেলে। রাগ মানুষকে ধ্বংসের প্রান্তসীমায় পৌঁছে দিতে পারে। এই কারণে রাগকে নিয়ন্ত্রণ করা অত্যন্ত জরুরী। আর এ রোগ থেকে আরোগ্য লাভের উপায় হলো, প্রথমে রাগান্বিত ব্যক্তিকে স্থির হতে হবে। নিজের অবস্থান বদলাতে হবে। কথা বলা অবস্থায় থাকলে চুপসে যেতে হবে। দাঁড়ানো থাকলে বসে যেতে হবে। বসা থাকলে শুয়ে যেতে হবে। সম্ভব হলে অযু করতে হবে। মহান আল্লাহর সিদ্ধান্তের প্রতি সন্তুষ্ট থাকার উপর নিজেকে অভ্যস্ত করে নিতে হবে। প্রয়োজনে রাগের স্থান ত্যাগ করতে হবে অথবা যার প্রতি রাগ এসেছে তার কাছ থেকে দূরে সরে যেতে হবে ইত্যাদি বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে রাগ নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে। পাশাপাশি রাগ হজম করার ফজিলতের কথা ভাবা যেতে পারে। কেননা আল্লাহ রব্বুল আলামীন রাগ হজমকারীদেরকে সূরা আলে ইমরানের ১৩৪নং আয়াতে সৎ কর্মপরায়ণদের অন্তর্ভূক্ত করেছেন। ১৬। গাফলতিতে আক্রান্ত হওয়া। গাফলতি হলো কোন বস্তু মানুষের মনের মাঝ থেকে অনুপস্থিত থাকা বা স্মরণে না থাকা। গাফলতি মানুষের অন্তরের অন্যতম একটি রোগ। আর এই কারণে আল্লাহ তায়ালা গাফলতির চরম নিন্দা করেছেন এবং গাফেলদের থেকে সাবধান করেছেন। তিনি তাঁর নবীকে গাফেলদের অন্তর্ভূক্ত হওয়া থেকে সাবধান করে ইরশাদ করেছেন যে, আর আপনি আপন মনে আপনার রবকে স্মরণ করুন সকাল-সন্ধ্যায় অনুনয়-বিনয় ও ভীতি সহকারে এবং অনুচ্চ স্বরে। আর যারা গাফলতিতে নিমজ্জিত তাদের অন্তর্ভুক্ত হবেন না। (সূরা আরাফ: ২০৫) ১৭। নিফাকী। নিফাকী বা কপটতা (অর্থাৎ ভেতরে মন্দ লুকায়িত রেখে ভালটা প্রকাশ করা) মারাত্মক একটি ব্যাধি এবং এর পরিণতি খুবই ভয়াবহ ও ক্ষতিকর। এটি মানুষের অন্তরকে একেবারে নষ্ট করে দেয়, যার ফলে মানুষ অনেক সময় ঈমানহারা পর্যন্ত হয়ে যায়। কারো অন্তরে নিফাকী থাকলে সে প্রতারণা, মিথ্যা, ওয়াদা ভঙ্গ করা, ঝগড়া করা, গালাগালি করা, চুক্তি ভঙ্গ করা, খিয়ানতি করাসহ আরো অনেক পাপে জড়িয়ে পড়ে, যার কারণে সে জাহান্নামের অনেক কাছাকাছি হয়ে যায়। তাই নিফাকীকে হালকাভাবে না দেখে এটার ব্যপারে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে এবং নিফাক থেকে বাঁচতে হবে। ১৮। পাপের জন্য অনুতপ্ত না হওয়া। কোন পাপে জড়িয়ে পড়লে সেটা থেকে তওবা না করা কিংবা হৃদয়ে এর জন্য অনুশোচনা না আসা অন্তরের আরেকটি ব্যাধি। এই ব্যাধি থেকে বাঁচতে হলে পাপ হয়ে গেলে অবশ্যই তওবা করে নিতে হবে। উল্লেখিত আলোচনা থেকে আমরা অন্তরের অনেকগুলো রোগের ব্যাপারে জানতে পারলাম। আর আমাদের সকলেরই উচিত উল্লেখিত রোগগুলো থেকে নিজেদেরকে মুক্ত রাখা। আল্লাহ আমাদের সবাইকে তাওফিক দিন। আমীন

প্রচারে : আসুন কুরআন পড়ি, সফল জীবন গড়ি।
আল-শেফা জেনারেল হাসপাতাল (প্রা.), কমলপুর, ভৈরব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!