• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৮ অপরাহ্ন |
  • English Version

শিয়ালের কামড়ে আহত অর্ধশতাধিক

# এম.আর রুবেল, সংবাদদাতা :-

শিয়ালের আতংকে দিন কাটাচ্ছে কয়েক গ্রামের মানুষ। ৮ সেপ্টেম্বর বুধবার থেকে ১১ সেপ্টেম্বর শনিবার ভোর পর্যন্ত শিশু কিশোরসহ বিভিন্ন বয়সের অর্ধশতাধিক নারী পুরুষকে শিয়ালের কামড়ে আহত হয়েছেন। আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেয়। ভৈরব উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের ভাটিকৃষ্ণনগর, শুম্ভুপুর, ফাঁড়িরঘুনাথপুর ও আলুকান্দা গ্রামে এসব ঘটনা ঘটেছে।
স্থানীয়রা জানান, কিছুদিন ধরে এলাকায় শিয়ালের উপদ্রব বেড়ে গেছে। খাবারের খুঁজে শিয়াল দল বেধে পাড়া মহল্লায় ঢুকছে। ভোর সকালে ও সন্ধ্যারাতে পথচারীসহ বিভিন্ন বসত ঘরে ঢুকে মানুষজনকে কামড়িয়ে আহত করেছে। এখন শিয়াল আতংকে দিন কাটাচ্ছে কয়েক গ্রামের মানুষ।
গত ৩ দিনে উপজেলার ভাটিকৃষ্ণনগরের সাইফুল ইসলাম (৩৫), নাঈম মিয়া (২০), মামুন মিয়া (৩০), শুম্ভুপুর গ্রামের শরীফ (৩৫), মাহিন (২৫), ফাঁড়িরঘুনাথপুর গ্রামের হাজেরা বেগম (৬০), কাউসার মিয়া, কহিনুর বেগম (৩০), বেনচান বানু, তৌহিদ মিয়া, আলুকান্দা গ্রামের রজব আলী (৫৮), তার দুই ছেলে হাবিবুল্লাহ (১৪), আব্দুল্লাহ (৯), প্রতিবন্ধী আলকাছ মিয়া (৪০), মান্নান মিয়া, শফিক মিয়া, রবিন মিয়া, ফিরোজ মিয়া (৭৫)সহ আনুমানিক ৫৩ জনকে কামড়ে আহত করেছে। সরকারি উদ্যোগে শিয়ালের উপদ্রব বন্ধ করার দাবি এলাকাবাসীর।
ভাটিকৃষ্ণনগরের সাইফুল ইসলাম জানান, ৮ সেপ্টেম্বর বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে দোকানে চা পান করে বাড়িতে যাওয়ার সময় শিয়াল তাকে কামড় দেয়। এসময় অন্তত ৯ জনকে কামড়ায়। পড়ে হাসপাতালে ভ্যাকসিন ও প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়া হয়।
ভাটিকৃষ্ণনগরের নাঈম মিয়া জানান, রাতের বেলা ঘরের দরজার সামনে কয়েল জ্বালাতেই তার হাতে শিয়াল কামড়ে দেয়।
আলুকান্দা গ্রামের ফিরোজ মিয়া জানান, ৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ফজরের আযান দিতে মসজিদে যাওয়ার সময় শিয়াল তাকে আক্রমন করে শরীরের বিভিন্নস্থানে ৪/৫টি কামড় দেয়। একই জায়গায় তিনিসহ আরো ৩ মুসল্লিকে কামড়ে আহত করে।
প্রতিবন্ধী আলকাছ মিয়া জানান, ৮ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল ৭টার দিকে ঘর থেকে বের হতেই শিয়াল কামড়ে আহত করে। পরে সরকারি হাসপাতালে গিয়ে ভ্যাকসিন নেয়।
আলুকান্দা গ্রামের রজব আলী বলেন, ৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ফজরের আজানের পর দুই শিশু ছেলেকে নিয়ে নামাজের জন্য ঘর থেকে বের হলে শিয়ালের কবলে পড়ে। প্রথমে দুই ছেলেকে আক্রমন করে। তাদের বাঁচাতে গেলে আমার হাতে কামড়ে ধরে। কোন ভাবেই হাত ছাড়াতে না পারায় অপর হাতে শিয়ালের মুখে টান দিয়ে ধরে শিয়ালটিকে ঝাপটিয়ে ধরে। তখন ডাক চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে শিয়ালটিকে মেরে ফেলে। শিয়ালের আতংকে এলাকার লোকজন ভোর সকাল ও রাতে লাঠিসোটা নিয়ে চলতে হচ্ছে বলে জানান।
শিবপুর ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার মো. মোক্তার উদ্দিন জানান, শিয়াল আতংকে লাঠিসোটা নিয়ে ঘর থেকে বের হয় এলাকার লোকজন। শিয়ালের উৎপাতে গত কয়েকদিনে ৪টি গ্রামের অন্তত ৪৫/৫০জন মানুষকে কামড়ে আহত করেছে। এ সমস্যা থেকে পরিত্রান পেতে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. খুরশিদ আলম বলেন, শিয়ালের কামড়ে আহত লোকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ভ্যাকসিন সংকট থাকায় গুরুতর আহতদেরকে অন্য হাসপাতালে গিয়ে ভ্যাকসিন নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!