• শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন |
  • English Version

দানে লৌকিকতা শিরকের অন্তর্ভূক্ত , সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক

দানে লৌকিকতা শিরকের অন্তর্ভূক্ত

সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক

অন্যের জন্য কল্যাণ, উপকার বা সুবিধা পৌঁছে দেওয়াকে ছদকাহ বা দান বলা হয়। আর আল্লাহর রাস্তায় দান করা অন্যতম একটি ইবাদত এবং এর গুরুত্ব ও ফযিলত অনেক। এই ব্যাপারে মহান আল্লাহ বলেন, তোমরা যা কিছু (সৎ কাজে) ব্যয় করবে তিনি তার বিনিময় প্রদান করবেন। তিনি সর্বশ্রেষ্ঠ রিযিকদাতা। (সূরা সাবা: ৩৯)
অন্যত্র এসেছে, তোমরা যা কিছু ধন-সম্পদ দান কর, তা নিজেদের উপকারের জন্যই। আল্লাহর সন্তুষ্টি ব্যতীত অন্য কোন উদ্দেশ্যে তোমরা দান কর না। আর তোমরা যা দান কর, তার পুরস্কার পূর্ণভাবে প্রদান করা হবে এবং তোমাদের প্রতি অন্যায় করা হবে না। (সুরা বাকারাঃ ২৭২)
রাসূল (সা.) বলেছেন, তোমরা জাহান্নাম থেকে বাঁচো, যদিও খেজুরের এক টুকরা দান করে হয়। (বুখারী: ১৪১৭, নাসাঈ: ২৫৫২)
উল্লেখিত দুটি আয়াত এবং রাসূল (সা.) এর হাদীসের মাধ্যমে বুঝা যায় যে, দান ছদকাহ করার গুরুত্ব এবং ফযিলত ইসলামী শরীয়তে অনেক। পাশাপাশি এটাও বুঝা যায় যে, দান শুধুমাত্র মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যই করতে হবে। অথচ দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আজকে অনেক মানুষ ফরজ যাকাতের সম্পদ দান করে আবার ছবি তুলে সেটা অন্য মানুষদেরকে দেখিয়েও থাকে। অনেক মানুষ অন্যকে ইফতার দেয়, সাহারী খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়, গরীবদেরকে চাল, ডাল, তৈল এবং কাপড়- চোপড়সহ অনুদান হিসেবে বিভিন্ন কিছু দেয় আবার সেগুলোর ছবি তুলে কিংবা ভিডিও করে ঢালাওভাবে এর প্রচারও করে থাকে। অথচ এটাই হল লৌকিকতা মিশ্রিত দান; যা পরিত্যাজ্য এবং শিরকের অন্তর্ভূক্ত। কেননা রাসূল (সা.) বলেছেন যে, আমি তোমাদের জন্য যে সকল বিষয়ে সবচেয়ে বেশী আশঙ্কা করি তন্মধ্যে ছোট শিরক অন্যতম বিষয়। সাহাবীগণ জিজ্ঞেস করলেন হে আল্লাহর রাসূল! ছোট শিরক কি? তখন তিনি বললেন, তা হচ্ছে রিয়া তথা লোক দেখানো আমল। কিয়ামতের দিন মহান আল্লাহ তাআলা মানুষের (সৎ) আমলের প্রতিদান প্রদানের পর ঐ সকল রিয়াকারীদের উদ্দেশ্যে বলবেন, তোমরা দুনিয়াতে যাদেরকে দেখানোর জন্য ইবাদত করতে তাদের নিকট চলে যাও, দেখো তাদের নিকট কোনরূপ প্রতিদান পাও কি না? (সহীহঃ ৯৫১, বুলুগুল মারামঃ ১৪৮৫)
একটি হাদীসে কুদসীতে এসেছে যে, মহান আল্লাহ বলেন, আমি শিরকারীদের শিরক হতে মুক্ত, যে ব্যক্তি কোন আমল করে এবং তাতে আমার সাথে অন্য কোন কিছুকে শরীক বা অংশীদার স্থাপন করে, আমি তাকে এবং তার শিরককে পরিহার করি। (ইবনে মাজাহঃ ৪২০২)
তাছাড়া যেই মানুষ অন্যকে দেখানোর জন্য, কিংবা দানশীল অথবা দাতা উপাধি পাওয়ার জন্য কোন কিছু দান করে, কিয়ামতের দিন আল্লাহর নির্দেশে তাকে উল্টো করে ধরে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে। (নাউযুবিল্লাহ) তিরমিযিঃ ২৩০৪)
কাজেই দান করে সেটা মানুষকে দেখানোর জন্য প্রচার করা জায়েজ নেই। কেননা মানুষকে দেখানোর জন্য যেই দান করা হয় তা তথা দানে লৌকিকতা শিরকের অন্তর্ভূক্ত। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সকল ধরণের শিরক থেকে হেফাজত করুন। আমীন।
প্রচারে: আসুন কুরআন পড়ি, সফল জীবন গড়ি।
আল-শেফা জেনারেল হাসপাতাল (প্রা.), ভৈরব।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!