• শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৩:০৮ অপরাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
ভৈরবে ভোটারদের প্রশিক্ষণ দিতে “মক ভোটিং” কিশোরগঞ্জে র‌্যাবের হাতে ইলেক্ট্রনিক সরঞ্জামসহ দুই পর্ণোগ্রাফ ব্যবসায়ী আটক কিশোরগঞ্জে নতুন ১০ জনের করোনা শনাক্ত, কুলিয়ারচর দু’মাস শূন্য থাকার পর একজন শনাক্ত কিশোরগঞ্জে গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতির সম্মেলনে নতুন কমিটি পাকুন্দিয়ায় কালাজ্বর নির্মূল কর্মসূচির অবহিতকরণ সভা ভৈরব পৌরসভার নির্বাচনে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের ইভিএম প্রশিক্ষণ ভৈরবে ছিনতাইকারীর হামলায় শিশু সন্তানকে ট্রেনে রেখেই ছিঁটকে পড়লেন মা নির্বাচনকে ঘিরে ভৈরব পৌর এলাকা এখন উৎসবের নগরী পাপ কাজের দুনিয়াবী ক্ষতি : সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. হাবিবুর রহমানের টিকাদান কেন্দ্র পরিদর্শন

কুলিয়ারচরে নারীদের জন্য বউবাজার

সুমন মোল্লাঃ

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় শুধু নারীদের জন্য এত দিন আলাদা করে শপিং মল কিংবা বাজার ছিল না। অবশেষে শুধু নারীদের জন্য পৃথক বাজার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। নাম দেওয়া হয়েছে বউবাজার। ৫ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে এই বউবাজারের যাত্রা শুরু হয়। উদ্বোধনী দিনে ক্রেতা সমাগম ছিল বেশ। বিকিকিনিও হয়েছে ভালো। এতে উদ্যোক্তা ও বিক্রেতারা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন।
উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, বউবাজার প্রতিষ্ঠা করা হয় কুলিয়ারচর শপিং কমপ্লেক্সের অভ্যন্তরে। কুলিয়ারচর শপিং কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ বাজার প্রতিষ্ঠার প্রধান উদ্যোক্তা। তবে পরিচালনার জন্য পৃথক একটি কমিটি করা হয়েছে। বাজারবার ধরা হয় সপ্তাহে এক দিন, বৃহস্পতিবার। সময় সকাল আটটা থেকে রাত আটটা। উদ্বোধনী দোকান বসে ২৮টি।
থান কাপড়, তৈরি পোশাক, প্রসাধনসামগ্রীসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় বাহারি পণ্য ছিল উদ্বোধনী বাজারে। উপচে পড়া ক্রেতা ছিলেন।
চেতনা উপ-আনুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দুলধানা বেগম ছিলেন উদ্বোধনী দিনের ক্রেতাদের একজন। তিনি বলেন, নারীদের জন্য পৃথক বাজার হওয়ায় স্বস্তি লাগছে। কারণ, অনেক আয়েশে সময় নিয়ে কেনাকাটা করা গেছে। এখানে বিভিন্ন পণ্যের দামও কম। কুলিয়ারচরের অর্থনৈতিক অবস্থার বিপরীতে এ ধরনের বাজার গরিব পরিবারের মানুষের জন্য সুবিধা হবে। নারীরা এখানে এসে নিজেদের পছন্দমতো কেনাকাটা করতে পারবেন।
বাজার এলাকার বাসিন্দা জ্যোৎস্না রানী সাহা ও তৈরি পোশাক কিনেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘প্রথম দিনের অভিজ্ঞতা মধুর। কারণ, কম দামে হওয়ায়, কিনতে পারছি। আবার দরদাম করতেও সমস্যা হয়নি। দোকানিদের আচরণ ভালো ছিল।’
নরসিংদী থেকে এসে থান কাপড় ও তৈরি পোশাক নিয়ে বসেছিলেন মোশারফ মিয়া নামের এক ব্যবসায়ী। প্রথম দিনেই বিক্রি ভালো হওয়ায় বেশ ফুরফুরে মেজাজে ছিলেন তিনি। মোশারফ জানালেন, ক্রেতার সংখ্যা আরও কিছু বাড়লে এই বাজারের ভবিষ্যৎ ভালো হবে। এটি ভাটি অঞ্চলের মানুষের কাছে সমাদৃত হতে পারে।
মিলন মিয়া নামের আরেক ব্যবসায়ী বলেন, ‘বউ বাজারের পণ্যের দাম তুলনামূলক কম। সে কারণে স্বল্প আয়ের পরিবারগুলো এ বাজারের দিকে ঝুঁকবে বেশি।’
কুলিয়ারচর শপিং কমপ্লেক্স ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি জালাল উদ্দিন বলেন, স্বল্প আয়ের মানুষের কথা ভেবে এবং নারীদের সুবিধার জন্য মূলত বউবাজার প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগী হন তারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!