• রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০১:২১ অপরাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে নতুন আক্রান্ত ২ সুস্থও হয়েছেন ১০ জন ভৈরবে একজন মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ মিঠামইনে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ১০, ঢাকায় রেফার্ড ৮ জন শরীফুল ইসলামের ডিজিটাল এ্যাপস উদ্ভাবন, পরিবার পরিকল্পনা আর প্রজনন সেবায় প্রসূতি কিশোরীদের দিশা ভৈরবে র‍্যাবের হাতে দুই বিদেশি নাগরিক গ্রেফতার। কিশোরগঞ্জে নতুন করোনা রোগি ৮ জন সুস্থ হলেন ৭ জন, সুস্থতা ৯৪.৯৬ ভাগ কিশোরগঞ্জ আ’লীগের সাবেক সম্পাদক মহিউদ্দিন আহাম্মদের ১৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত ভৈরবে মাদক উদ্ধার করে বিক্রির দায়ে এসআইসহ ২ পুলিশ সদস্য ক্লোজড কিশোরগঞ্জে নতুন করোনা রোগি ৭ সবাই সদর উপজেলার, সুস্থ ৮ জন কিশোরগঞ্জে প্রতিবন্ধী স্কাউটকে প্রণোদনা

জুম প্রযুক্ততে দুর্গা পূজার প্রস্তুতি সভা, কিশোরগঞ্জে এবার ৩৬৮ মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব

জুম প্রযুক্ততে দুর্গা পূজার প্রস্তুতি সভা
কিশোরগঞ্জে এবার ৩৬৮
মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব

# মোস্তফা কামাল :-

কিশোরগঞ্জে এবার ৩৬৮টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপিত হবে। আজ ৫ অক্টোবর সোমবার বেলা ১২টা থেকে প্রায় পৌনে ৩ ঘন্টার জুম প্রযুক্তিতে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় এ তথ্য জানানো হয়। জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অনলাইনে সংযুক্ত হয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য ও পরামর্শ দেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান, র‌্যাব-১৪ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের উপ-পরিচালক লে. কমান্ডার এম শোভন খান, আনসার ও ভিডিপি কমান্ড্যান্ট জেএম ইমরান, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র ভৌমিক দোলন, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি ও কালিবাড়ির সভাপতি অ্যাডভোকেট ক্ষিতিশ দেবনাথ, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোকাররম হোসেন, অষ্টগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কাদির মিয়া, বাজিতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপ্তিময়ী জামান, অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ চৌধুরী, জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সামছুল ইসলাম খান মাসুম, সাবেক ট্রাস্টি রিপন রায় লিপু, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ দত্ত প্রদীপ, সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মাখন দেবনাথ প্রমুখ।
সভায় জেলা প্রশাসক বলেছেন, এবারের বিশেষ পরিস্থিতির কারণে অন্যান্য বছরের মত এত জাকজমকের সঙ্গে পূজার আয়োজন না করার জন্য সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। মণ্ডপগুলোতে যেন অতিরিক্ত জনসমাগম না হয়, ভক্তি সঙ্গীত বাজানো হলেও উচ্চ শব্দে বাজানো যাবে না। অন্যান্য সাংস্কৃতিক আয়োজনও কাটছাঁট করতে হবে। প্রশাসন এবং আইন শৃংখলা বাহিনী যেমন দায়িত্ব পালন করবে, প্রতিটি মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবক দলও রাখতে হবে। ফায়ার সার্ভিস তৈরি থাকলেও প্রতিটি মণ্ডপে নিজেদের উদ্যোগে পর্যাপ্ত অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা রাখতে হবে। প্রতিটি মণ্ডপে সরকারের পক্ষ থেকে ৫শ’ কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হবে। নগদ টাকাও বরাদ্দ দেয়া হবে বলে তিনি ঘোষণা দেন। হাওরের পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে পূজার সময় চামড়া নৌবন্দরে একটি ডুবুরি দল মোতায়েন থাকবে। আর সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে প্রতিমা বিসর্জন দেয়ার জন্য তিনি পূজার আয়োজকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। পূজা উপলক্ষে সন্ধ্যা থেকে ওয়ার্কশপগুলো বন্ধ রেখে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য তিনি পিডিবি এবং আরইবি’র প্রতি আহবান জানিয়েছেন। জেলা প্রশাসক কার্যালয়, পুলিশ সুপারের কার্যালয় এবং কালিবাড়িতে পূজা উপলক্ষে সার্বক্ষণিক কন্ট্রোল রুম চালু থাকবে বলেও তিনি জানান। সেই সঙ্গে ৬টি ভিজিলেন্স টিম জেলার সকল পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করবে।
পুলিশ সুপার বলেছেন, গত বছর দেশে ৩১ হাজার মণ্ডপে পূজা হয়েছিল। এবার কোভিড পরিস্থিতির কারণে মণ্ডপ কমেছে। পার্শ্ববর্তী পশ্চিমবঙ্গেও এবার মণ্ডপের সংখ্যা অনেক কমে গেছে বলে তিনি জানান। কাজেই এবারের বিশেষ পরিস্থিতির দিকে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য তিনি আহবানা জানিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, যেসব স্বেচ্ছেসেবক মণ্ডপে দায়িত্ব পালন করবেন, তাদেরকে ডিএসবি’র কাছ থেকে নিরাপত্তা পাস নিতে হবে। তাদেরকে শনাক্ত করার মত পোশাক. আর্ম ব্যান্ড বা বুকে ব্যাজ থাকতে হবে। পূজার সময় এবার এক জায়গায় স্থিরভাবে পুলিশ দায়িত্ব পালন করবে না। তারা সবসময় মোবাইল অবস্থায় থাকবে এবং প্রতিটি মণ্ডপেই যাবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে পরবর্তীতে প্রতিমা বিসর্জনসহ বিভিন্ন বিষয়ে যেরকম নির্দেশনা আসবে, সেভাবে দায়িত্ব পুনর্বিন্যাস করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। আর নির্বিঘ্নে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকেও একটি প্রস্তুতি সভা করা হবে বলে তিনি ঘোষণা দিয়েছেন।
সিভিল সার্জন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আসন্ন শীতে করোনার সেকেন্ড ওয়েভের আশঙ্কার কথা তুলে ধরেছেন। কাজেই মাস্ক পরাসহ যথাযথ আস্বাস্থ্যবিধি মেনে এবারের পূজা উদযাপনের জন্য সিভিল সার্জন সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। মণ্ডপে তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য থারমাল স্ক্যানার রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। সেই সঙ্গে জীবানুনাশক ব্যবহার করারও আহবান জানিয়েছেন। তিনি প্রতিটি উপজেলায় পূজা উপলক্ষে একটি করে মেডিক্যাল টিম থাকবে বলেও জানিয়েছেন।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বলেছেন, প্রতিটি মণ্ডপে নারী-পুরুষের আগমন-নির্গমনের জন্য পৃথক পথ রাখতে হবে। পূজার সময়টাতে শহরের গাছবাজার বন্ধ রাখতে হবে। যানজট নিয়ন্ত্রণে কঠোর হতে হবে। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। প্রতিটি মণ্ডপকেও যার যার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনের জন্য তিনি আহবান জানিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!