• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৫:৩৫ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কটিয়াদীতে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক, পুলিশের গুলি, গ্রেপ্তার ২৩ জমি অধিগ্রহণের দুই কোটি টাকা ফেরত না দিতে নানা ষড়যন্ত্র দাতার বিরুদ্ধে লাল বাহাদুরের রং পাল্টে হয়ে গেল কুচকুচে কালো নানা অঙ্গসজ্জায় সাজানো হয় কোরবানির পশু পাচারকালে ৬০ বস্তা সার জব্দ করে মামলা পৌনে তিনশ বছরের প্রাচীন শোলাকিয়া ঈদগার প্রস্তুতি ভৈরবে এমবিশন পাবলিক স্কুলের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কুরবানী সম্পর্কীত কিছু মাসায়েল ; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক ছিনতাইকৃত টাকা ও মাদক উদ্ধারে অবদান রাখায় আইজিপি পুরস্কারে ভূষিত ভৈরবের ওসি সফিকুল ইসলাম ইসরায়েলি গণহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে পরাজিত হয়েও কর্মীদের দুয়ারে দুয়ারে জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু

# মিলাদ হোসেন অপু :-
ভৈরব উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে পরাজিত হয়েও কর্মীদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু। আজ ৯ জুন রোববার পৌর শহরের জগন্নাথপুর তাঁতারকান্দি এলাকায় গণসংযোগ করে জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। ৫ জুন অনুষ্ঠিত হয়েছে চতুর্থ ধাপে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে জাহঙ্গীর আলম সেন্টুর সাথে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। এতে বিজয়ী হোন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল মনসুর। তিনি কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে পেয়েছে ৪৮ হাজার ২০০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু (ঘোড়া) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩২ হাজার ৪২৫ ভোট। এ ছাড়াও এই নির্বচনে বিএনপির নেতা আল মামুন পেয়েছেন (মোটরসাইকেল) ৭ হাজার ৯৭১ ভোট ও সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোশতাক আহমেদ বুলবুল পেয়েছেন ৫ হাজার ৪৩৫ ভোট।
এদিকে নির্বাচনের পরেই নেতাকে কাছে পেয়ে কর্মী সমর্থকরাও উচ্ছ্বাসিত। যদিও নেতাকর্মীদের দাবী নির্বাচনের পরে অন্যান্য জয়ী ও পরাজিত কোন প্রার্থীকেই কেউ এমন ভাবে ঘুরতে দেখেনি।
গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি এসএম বাকী বিল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক আতিক আহমেদ সৌরভ, সহ-সভাপতি ও ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর দ্বীন ইসলাম, নির্বাহী সদস্য কবিরুজ্জমান রুমান, সহ-প্রচার সম্পাদক একেএম মোশারফ হোসেন মুছা প্রমুখ।
এ সময় এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু ঘরে বসে থাকা লোক নয়। তিনি দলের সাধারণ সম্পাদক। স্থানীয় এমপি মাননীয় মন্ত্রী আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপনের বিশ্বস্ত হাতিয়ার তিনি। নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবেই। ভৈরবের মানুষের যে কোন সমস্যা সমাধানে তিনি সোচ্ছার রয়েছেন। জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু একজন দক্ষ কর্মীবান্ধব জননেতা। কর্মীদের বিপদে তিনি কোন দিন ঘরে বসে থাকবেন না। এ সময় আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা জাহাঙ্গীর আলম সেন্টুর পক্ষে পৌর ও ইউনিয়নবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
এসময় জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু বলেন, আমি আপনাদেরই লোক। আমি আপনাদের ঋণ কোন দিন শোধ করতে পারবো না। আমি অতীতেও আপনাদের পাশে ছিলাম। বর্তমানেও আছি এবং ভবিষ্যতেও আপনাদের পাশে থাকতে চাই। নির্বাচনে পরিশ্রম করায় তিনি দলের নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *