• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
একই বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক শহীদ বুদ্ধিজীবী বিদায়ী অধ্যক্ষ-সভাপতি দ্বন্দ্বে শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বন্ধ বাজিতপুরে বইয়ের কভারের আদলে বাড়ির সীমানা প্রাচীর দেখতে মানুষের ভিড় (আপডেট) স্মার্ট দেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে…… নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম কারামুক্ত কুলিয়ারচরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসানকে নাগরিক সংবর্ধনা ১২ কেজি গাঁজাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার লায়ন মশিউর আহমেদ ওয়েশকা ইন্টারন্যাশনাল জাপান বাংলাদেশ ন্যাশনাল চ্যাপ্টার এর দ্বিতীয় ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভৈরবে ১ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই গৃহবধূ জন্ম দিলেন ৬ সন্তান ভৈরবে শিমুলকান্দি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নবম বর্ষে পদার্পণে কেক কাটা ও সার্টিফিকেট বিতরণ

শত বছরের প্রাচীন চাষী ক্লাব দখল

চাষী ক্লাবের জায়গা দখল করে নির্মাণ করা হচ্ছে দোকান -পূর্বকণ্ঠ

শত বছরের প্রাচীন
চাষী ক্লাব দখল

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
কিশোরগঞ্জে শত বছরের পুরনো চাষী ক্লাবের জায়গা দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। একটি প্রভাবশালী চক্র ক্লাবের ঘরটি ভেঙে সেখানে বেশ কিছু আধাপাকা দোকান নির্মাণ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাঁর অফিসের নায়েব পাঠিয়ে খোঁজ নেবেন বলে জানিয়েছেন।
অভিযোগে জানা গেছে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার লতিবাবাদ ইউনিয়নের কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ সড়কে সাদুল্লাচর চিন্তাগঞ্জ বাজার। সেখানে আড়াই শতাংশ জায়গার ওপর প্রায় একশ বছর আগে প্রতিষ্ঠা হয়েছিল চাষী ক্লাবটি। এখানে কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ সভা, কৃষি কর্মকর্তাদের দিকনির্দেশনা, কৃষি নিয়ে অভিজ্ঞতার আদান প্রদানসহ বিভিন্ন কার্যক্র পরিচালিত হতো। কিন্তু এলাকার আওয়ামী পরিবারের সদস্য দেলোয়ার হোসেন কোয়েলসহ একটি চক্র বছর দুয়েক আগেই জায়গাটি দখল করে নিয়েছে বলে জানা গেছে। সম্প্রতি চাষী ক্লাবের ঐতিহ্যবাহী ঘরটি ভেঙে ফেলে সেখানে দোকান বসানোর জন্য আধাপাকা স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। গত ২৩ নভেম্বর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে কোয়েলের বিরুদ্ধে ‘এলাকাবাসী’ পরিচয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। সেখানে দখলদার চক্রটিকে ‘চিহ্নিত খুনি, ভূমি দস্যু’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগে ক্লাবটি রক্ষার আবেদন জানানো হয়েছে।
জায়গার মালিক মৃত ইউসুফ আলীর মেয়ে আমেনা খাতুন জানিয়েছেন, তাঁর পূর্ব পুরুষেরা চাষী ক্লাবের জন্য জায়গাটি দিয়েছিলেন। এখন দেলোয়ার হোসেন কোয়েল গায়ের জোরে ঘরটি ভেঙে সেখানে স্থাপনা তৈরি করছেন। এর বিরুদ্ধে মামলা করলেও সেটি ফয়সালা হতে সময় লাগবে। যে কারণে আমেনা খাতুন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকীর সঙ্গে দেখা করে প্রতিকার দাবি করেছেন বলে জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে লতিবাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, তিনি ক্লাবটি ভেঙে দোকান নির্মাণের কাজে বাধা দিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর বাধা উপেক্ষা করে দোকান নির্মাণ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য চাষী ক্লাব দখলকারী দেলোয়ার হোসেন কোয়েলকে ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকীকে প্রশ্ন করলে তিনি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন, তাঁর কাছে কিছু ব্যক্তি সমস্যাটি নিয়ে এসেছিলেন। এখন নির্বাচনী কাজের জন্য কিছুটা ব্যস্ততা আছে। তার পরও তিনি একজন নায়েব পাঠিয়ে অভিযোগের বিষয়ে খোঁজ নেবেন বলে জানিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *