• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৫ অপরাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
সবুজ ভৈরবের আয়োজনে এমবিশন পাবলিক স্কুলে বৃক্ষরোপন কর্মসূচির আয়োজন ভৈরবে মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে অবরোধের চেষ্টা, ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের রাবার বুলেট নিক্ষেপ করিমগঞ্জে বেড়েছে শিশু শ্রমিক করিমগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধূর আত্নহত্যা নরসিংদী আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে সদ্য যোগদানকারী জেলা ও দায়রা জজকে সংবর্ধনা প্রদান বাজিতপুরে বর্জ্যরে বায়োগ্যাসে সাশ্রয় হচ্ছে জ্বালানি খরচ কোটা বিরোধীদের রাজাকার পরিচয়ের শ্লোগানের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন বাজিতপুরে চালককে হত্যার পর অটোরিকশা ছিনতাই নিজ মেয়েকে ধর্ষণ, বাবার মৃত্যুদণ্ড কিশোরগঞ্জে কোটা বিরোধী সংগঠনের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

সাত অতিরিক্ত ও যুগ্ম-সচিবের বাড়ি বাজিতপুর

# মোহাম্মদ খলিলুর রহমান :-
হাওর অঞ্চলের প্রবেশদ্বার বলে পরিচিত বাজিতপুর উপজেলা যেমন ঐতিহাসিক পটভূমি রয়েছে। তেমনি এই জনপদে জন্ম নিয়েছে অনেক গুণিজন। তাদের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য শেরে বাংলা এ. কে ফজলুল হকের নেতৃত্বাধীন অবিভক্ত বাংলার শিক্ষামন্ত্রীর খান বাহাদুর আবদুল করিম। পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম কৃষিমন্ত্রী হামিদ উদ্দিন আহমেদ খান, পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী, পরে পূর্ব পাকিস্তানের গভর্ণর আবদুল মোনেম খান। mywawavisit
স্বাধীনতা পরবর্তী হাওরস্পর্শী উজানভাটির জনপদে যার নাম সবার আগে চলে আসে তিনি শিল্পপতি আলহাজ্ব জহুরুল ইসলাম। তার সহযোগিতায় বাজিতপুরের অনেক কৃতি সন্তান বাংলাদেশের প্রথম সারির ব্যবসায়ী।
পিছিয়ে নেই সরকারি বেসরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার দিক দিয়ে। প্রায় অর্ধশতাধিক বাজিতপুরের সন্তান কর্মরত আছেন বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান হয়ে। বলা হয় সাত সচিবের বাড়ি বাজিতপুর উপজেলায়। এই উপজেলায় বর্তমানে ২ জন অতিরিক্ত সচিব ও ৫ জন যুগ্ম-সচিব রয়েছে। তারা তাদের কর্ম দক্ষতা পদোন্নতি হয়ে সুবাস ছড়াচ্ছে বাংলায় বাজিতপুর’কে করেছেন গৌরবান্বিত।
বাজিতপুর উপজেলার যে সাত সন্তান অতিরিক্ত সচিব ও যুগ্ম-সচিব হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন, তাঁরা হলেন অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ জাকীর হোসেন, অতিরিক্ত সচিব মো. দীন ইসলাম, যুগ্ম-সচিব একে এম তারেক, যুগ্ম-সচিব মো. আব্দুল মতিন, যুগ্ম-সচিব ড. আশরাফুল আলম, যুগ্ম-সচিব মো. জিয়াউল হক, যুগ্ম-সচিব সালেহা বিনতে সিরাজ।
জ্বালানি
ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ জাকীর হোসেন ১৯৬৫ সালে বাজিতপুর উপজেলার দিলালপুর ইউনিয়নের মহামীরেরবাগ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আব্দুস সালাম। তিনি ১০তম বিসিএস কর্মকর্তা। সাহিত্য অনুরাগী নজরুল প্রেমিক মানুষটি চারটি বই প্রকাশিত হয়েছে। সর্বশেষ কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ছিলেন তিনি।
কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. দীন ইসলাম নির্বাচিত মাদ্রাসাগুলোর উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক। তার পিতার নাম মাহবুবুর রহমান। তিনি ১৫ ও ১৭তম বিসিএস কর্মকর্তা। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে অতিরিক্ত সচিব হিসাবে যোগদানের আগে তিনি কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের পরিচালক ছিলেন।
বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের যুগ্ম-সচিব এ কে এম তারেক এর গ্রামের বাড়ি বাজিতপুর পৌর শহরের বসন্তপুর এলাকায়। তার পিতার নাম এ কে এম ফারুক। পর্যটন কর্পোরেশনের যুগ্ম-সচিব হিসাবে যোগদানের আগে তিনি পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ছিলেন।
শ্রেষ্ঠ ডিসি হিসেবে জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল মতিনের গ্রামের বাড়ি বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের গজারিয়া। তার পিতার নাম হেলাল উদ্দিন আহমেদ। তিনি ২১তম বিসিএস কর্মকর্তা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ যুগ্ম-সচিব হিসাবে যোগদানের আগে তিনি গাইবান্ধা জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) ছিলেন।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব ড. আশরাফুল আলম ১৯৭৫ সালে বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের নবুরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মো. তাহের উদ্দিন মাস্টার। তিনি ২১তম বিসিএস কর্মকর্তা। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব হিসাবে যোগদানের আগে তিনি মাগুরা জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) ছিলেন।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম-সচিব মো. জিয়াউল হক বাজিতপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আলাউল হক এর ছেলে। তার গ্রামের বাড়ি বাজিতপুর উপজেলার হিলচিয়া ইউনিয়নের সরিষাপুর গ্রামে। তিনি ২২তম বিসিএস কর্মকর্তা। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যোগদানের আগে তিনি বগুড়া জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) ছিলেন।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব সালেহা বিনতে সিরাজ এর গ্রামের বাড়ি সরারচর ইউনিয়নের মাছিমপুর। তার পিতার নাম মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক। তিনি ২২তম বিসিএস কর্মকর্তা। যুগ্ম-সচিব হিসাবে যোগদানের আগে তিনি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-সচিব ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *