• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৬:০৭ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
কটিয়াদীতে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক, পুলিশের গুলি, গ্রেপ্তার ২৩ জমি অধিগ্রহণের দুই কোটি টাকা ফেরত না দিতে নানা ষড়যন্ত্র দাতার বিরুদ্ধে লাল বাহাদুরের রং পাল্টে হয়ে গেল কুচকুচে কালো নানা অঙ্গসজ্জায় সাজানো হয় কোরবানির পশু পাচারকালে ৬০ বস্তা সার জব্দ করে মামলা পৌনে তিনশ বছরের প্রাচীন শোলাকিয়া ঈদগার প্রস্তুতি ভৈরবে এমবিশন পাবলিক স্কুলের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কুরবানী সম্পর্কীত কিছু মাসায়েল ; সংকলনে : ডা. এ.বি সিদ্দিক ছিনতাইকৃত টাকা ও মাদক উদ্ধারে অবদান রাখায় আইজিপি পুরস্কারে ভূষিত ভৈরবের ওসি সফিকুল ইসলাম ইসরায়েলি গণহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিকলীর হোটেলে গৃহবধূর খুনির আদালতে স্বীকারোক্তি

তামান্না

নিকলীর হোটেলে গৃহবধূর
খুনির আদালতে স্বীকারোক্তি

# নিজস্ব প্রতিবেদক :-
নিকলীর আবাসিক হোটেলে তামান্না (২২) নামে গৃহবধূর খুনি প্রেমিক হুমায়ুন (২৯) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তামান্নাকে গলায় ওড়না পেচিয়ে হত্যার কথা হুমায়ুন স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিকলী থানার ওসি মনসুর আরিফ। কিশোরগঞ্জ আদালতের পরিদর্শক আবুবকর সিদ্দিক জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) বিকালে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশিকুর রহমানের খাসকামরায় ১৬৪ ধারায় হুমায়ুনের স্বীকারোক্তি রেকর্ড করা হয়েছে।
কটিয়াদী উপজেলার চারিপাড়া গ্রামের কাঞ্চন মিয়ার ছেলে হুমায়ুন ও একই উপজেলার চরকাউনা এলাকার মোতালিব হোসেনের স্ত্রী তামান্না গত ২৫ মার্চ থেকে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে নিকলী সদরের শিমুল কমপ্লেক্স ভবনের একাংশ ‘হাওর প্যারাডাইস’ নমে আবাসিক হোটেলের ৬০৯ নম্বর কক্ষে অবস্থান করছিলেন বলে ওসি জানিয়েছেন। বিবাহিত হুমায়ুন কুলিয়ারচরের পিরিজপুর বাস্টস্ট্যান্ডে একটি মিষ্টির দোকানে চাকরি করেন। আর তামান্না কুলিয়ারচরের পশ্চিম জগৎচর গ্রামের অহিদ মিয়ার মেয়ে। এদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠেছিল। এর সূত্র ধরেই হুমায়ুন তাঁর স্ত্রীর কাছে ব্যবসার কাজে মেলায় যাওয়ার কথা বলে তামান্নাকে নিয়ে নিকলীর ওই হোটেলে গিয়ে উঠেছিলেন।
হোটেল কর্মি শায়লা আক্তার ও হুমায়ুন বুধবার দুপুরের আগে তামান্নাকে মুমূর্ষু অবস্থায় নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত অবস্থায় পান। এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ হুমায়ুনকে আটক করে থানায় খবর দিলে পুলিশ হাসপাতাল থেকে হুমায়ুনকে গ্রেপ্তার করে এবং ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠায়।
এ ঘটনায় তামান্নার বাবা অহিদ মিয়া বাদী হয়ে হুমায়ুনকে একমাত্র আসামী করে বুধবার রাতে নিকলী থানায় হত্যা মামলা (নং ৯) দায়ের করেছেন বলে ওসি মনসুর আরিফ জানিয়েছেন। হুমায়ুনকে আদালতে সোপর্দ করলে তিনি বিচারকের কাছে গলায় ওড়না পেচিয়ে তামান্নাকে হত্যার বিবরণ দিয়েছেন। এরপর তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
তামান্নার স্বামী মোতালেব হোসেন একটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। এখন বাড়িতেই থাকেন বলে তামান্নার বাবা অহিদ মিয়া জানিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *