• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:২৮ পূর্বাহ্ন |
  • English Version
শিরোনাম :
একই বিদ্যালয়ের দুই প্রধান শিক্ষক শহীদ বুদ্ধিজীবী বিদায়ী অধ্যক্ষ-সভাপতি দ্বন্দ্বে শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বন্ধ বাজিতপুরে বইয়ের কভারের আদলে বাড়ির সীমানা প্রাচীর দেখতে মানুষের ভিড় (আপডেট) স্মার্ট দেশ গড়তে হলে নতুন প্রজন্মকে স্মার্ট করে গড়ে তুলতে হবে…… নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম কারামুক্ত কুলিয়ারচরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসানকে নাগরিক সংবর্ধনা ১২ কেজি গাঁজাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার লায়ন মশিউর আহমেদ ওয়েশকা ইন্টারন্যাশনাল জাপান বাংলাদেশ ন্যাশনাল চ্যাপ্টার এর দ্বিতীয় ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভৈরবে ১ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই গৃহবধূ জন্ম দিলেন ৬ সন্তান ভৈরবে শিমুলকান্দি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নবম বর্ষে পদার্পণে কেক কাটা ও সার্টিফিকেট বিতরণ

রব হিসাবে আল্লাহরব হিসাবে আল্লাহ : সংকলনে- ডা. এ.বি সিদ্দিক

‘রব’ একটি আরবী শব্দ, যার অর্থ ব্যাপক। ‘রব’ শব্দটি একই সাথে সৃষ্টি ক্ষমতা এবং প্রতিপালন উভয় গুণের পরিচয় বহন করে। ‘রব’ শব্দটি আল্লাহ (সুব.) মহাগ্রন্থ আল-কুরআনে নয়শত আশি বার ব্যবহার করেছেন নিজের গুণাবলী এবং নামের বিপরীতে। আমরা এখন আল কুরআনে আল্লাহ (সুব.) ‘রব’ শব্দটি যে সমস্ত গুণাবলীর বিপরীতে ব্যবহার করেছেন তা জানার চেষ্টা করব ইন্শাআল্লাহ। রব’ শব্দটি আল-কুরআনে প্রথমত দুইটি মৌলিক অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে। যথাঃ(ক) স্রষ্টা হিসাবে।(খ) প্রতিপালক হিসাবে।স্রষ্টা হিসাবে রব: (ক) সকল বস্তুর সৃষ্টিকর্তা একমাত্র আল্লাহ:১. আল্লাহ সমস্ত কিছুর স্রষ্টা এবং তিনিই সমস্ত কিছুর নিয়ন্তা। (সূরা যুমার: ৬২)২. প্রকৃত পক্ষেই আল্লাহ সৃষ্টি করিয়াছেন তোমাদিগকে এবং তোমরা যাহা কর তাহাও। (সূরা সাফফাত:৯৬)৩. বলুন আল্লাহই প্রত্যেক বস্তুর সৃষ্টিকর্তা এবং তিনি একক পরাক্রমশালী। (সূরা রাদ:১৬)(খ) সমস্ত কিছুর একচ্ছত্র মালিকানা ও কর্তৃত্বের অধিকারী একমাত্র আল্লাহ:১. বল, এ পৃথিবী আর তার ভিতরে যা আছে তা কার? যদি তোমরা জান। তারা বলবে আল্লাহর। বল, তবুও কি তোমরা শিক্ষাগ্রহণ করবে না? (সূরা মু’মিনুন:৮৪-৮৫)২. বল, সব কিছুর একচ্ছত্র কর্তৃত্ব কার হাতে? তিনি আশ্রয় দেন, তাঁর উপর কোন আশ্রয় দাতা নেই। বল তোমরা যদি জান। তারা বলবে, সকল কিছুর কর্তৃত্ব আল্লাহর। তাহলে কেমন করে তোমরা যাদুগ্রস্থ হয়ে পড়ছ? (সূরা মুমিনুন: ৮৮-৮৯)(গ) সার্বভৌমত্বের অধিকারী একমাত্র আল্লাহ:১. বল, হে আল্লাহ, তুমি সমুদয় রাজ্যের মালিক, যাকে ইচ্ছে রাজ্য দান কর আর যার থেকে ইচ্ছে রাজ্য কেড়ে নাও এবং যাকে ইচ্ছে সম্মানিত কর আর যাকে ইচ্ছে অপদস্ত কর, তোমারই হাতে সব রকম কল্যাণ, নিশ্চয় তুমি সকল বস্তুর উপর ক্ষমতাবান। (সূরা আলে ইমরান:২৬)(ঘ) আইনদাতা, হালাল-হারাম ঘোষণাকারী একমাত্র আল্লাহ:১. বল, আমি আমার প্রতিপালকের নিকট থেকে পাওয়া এক উজ্জল প্রমাণের উপর প্রতিষ্ঠিত অথচ তোমরা তা মিথ্যে মনে করছ। যা তোমরা খুব তাড়াতাড়ি পেতে চাও (আল্লাহর আযাব) তা আমার আয়ত্তে নেই। কর্তৃত্বের মালিকানা আল্লাহ ছাড়া কারো কাছে নেই। তিনিই সত্য বর্ণনা করেন, আর তিনিই সর্বোত্তম ফয়সালাকারী। (সূরা আনআম: ৫৭)২. তাঁকে (আল্লাহকে) বাদ দিয়ে যার ইবাদত করছ তা কতগুলো নাম ছাড়া আর কিছুই নয়; যে নামগুলো তোমাদের পিতৃপুরুষেরা রেখেছে। এ ব্যাপারে আল্লাহ কোন প্রমাণ নাযিল করেননি। আল্লাহ ছাড়া কোন বিধান দাতা নেই। তিনি আদেশ করেছেন যে, তোমরা তাঁকে ছাড়া আর কারও ইবাদত করবেনা এটাই সঠিক দ্বীন, কিন্তু অধিকাংশ মানুষই তা জানে না। (সূরা ইউছুফ: ৪০) (ঙ) সমস্ত শক্তির একমাত্র উৎস আল্লাহ:১. আর কোন কোন লোক এমনও আছে যে, আল্লাহ ছাড়া অন্যকে আল্লাহর সমকক্ষরূপে গ্রহণ করে, আল্লাহকে ভালবাসার মত করে তাদেরকে ভালবাসে। কিন্তু যারা মুমিন আল্লাহর সাথে তাদের ভালবাসা প্রগাঢ় এবং কি উত্তমই হত যদি যালিমরা শাস্তি দেখার পর যেমন বুঝবে, তা যদি এখনই বুঝত যে, সমস্ত শক্তি আল্লাহর জন্য এবং আল্লাহ শাস্তিদানে অত্যন্ত কঠোর। (সূরা বাকারা: ১৬৫)

প্রচারে : আসুন  কুরআন পড়ি, সফল জীবন গড়ি।আল- শেফা জেনারেল হাসপাতাল (প্রাঃ), কমলপুর, ভৈরব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *