• বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:২৭ অপরাহ্ন |
  • English Version

পাকুন্দিয়ায় কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

# রাজন সরকার :-

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বেড়িয়ে রেস্টুরেন্টে যাওয়ার পথে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৬ বছরের এক কিশোরী। ১৬ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ড্রেইনেরঘাট ব্রীজের পূর্ব পাশে একটি ছন ক্ষেতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পরে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় ৩ যুবকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার ৩ যুবক ধর্ষণের ঘটনা স্বীকার করেছে।
গ্রেফতারকৃত যুবকরা হলেন, উপজেলার দক্ষিণ খামা গ্রামের মো. হেলিমের ছেলে মো. দিপু মিয়া (২১), পুটিয়া গ্রামের মো. লিয়াকত আলীর ছেলে মো. সোহাগ মিয়া (১৯) ও একই গ্রামের মো. খোকন মিয়ার ছেলে মো. ইলিয়াস (১৯)। তাদের আজ ১৭ আগস্ট বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে বুরুদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে যায় ওই কিশোরী। সেখানে গিয়ে দেখে কার্যালয়ে এখনও সচিব আসেনি। কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর ওই কিশোরী মুঠোফোনে তার ফুফাত বোনের স্বামী আরমানকে ইউনিয়ন পরিষদে আসতে বলে। আরমান না এসে তার বন্ধু ইলিয়াসকে ইউনিয়ন পরিষদে পাঠায়। তারপরও সচিব না আসায় ওই কিশোরীকে একটি রেস্টুরেন্টে গিয়ে নাস্তা খেতে বলে ইলিয়াস। পরে ইলিয়াসের কথামত ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বের হয়ে ড্রেইনের ঘাট এলাকায় স্বপ্ন তরি নামের একটি রেস্টুরেন্টে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয় তারা দুইজন। ড্রেইনের ঘাট ব্রীজের কাছে একটি কলা বাগানের সামনে পৌঁছালে ইলিয়াসের দুই বন্ধু দিপু ও সোহাগ ও কিশোরীর গতিরোধ করে। প্রথমে কিশোরীর হাতে থাকা মুঠোফোনটি নিয়ে যায় দিপু। পরে জোরপূর্বক কলাবাগানের পূর্ব পাশে একটি ছন ক্ষেতে নিয়ে যায় কিশোরীকে। সেখানে নিয়ে প্রথমে দিপু ও পরে সোহাগ পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় রাস্তায় পাহাড়া দিচ্ছিল ইলিয়াস। একপর্যায়ে কিশোরী চিৎকার শুরু করলে তিনজন পালিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কিশোরীকে উদ্ধার করে আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়। পরে ওই দিন বিকেলে পাকুন্দিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করে কিশোরীর বাবা।
এ ব্যাপারে পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সারোয়ার জাহান বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ধর্ষণের সত্যতা স্বীকার করেছে। তাদের আজ বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: কপি করা নিষেধ!!!